কাতারে দক্ষ শ্রমিক পাঠানোর তাগিদ দিলেন প্রবাসী বাংলাদেশীরা

কাতারে দক্ষ শ্রমিক পাঠানোর তাগিদ দিলেন প্রবাসী বাংলাদেশীরা

শতকোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অ’ভিযো’গে জামাইয়ের বি’রু’দ্ধে শাশুড়ির মা’মলা
যুবলীগের প্রেসিডিয়ামে মাশরাফীর নাম নেই
রাজা মিয়ার চায়ে মুখরিত বিমানবন্দর এলাকা, প্রতিবন্ধীরা পায় ফ্রি’তে

উপসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম ধনী দেশ হল কাতার। আর প্রবাসীদের কাছেও এই দেশের কদর অনেক। আর

সেখানে বিভিন্ন সময় মেলে বিভিন্ন রকমের সুযোগ সুবিধা।

মধ্যপ্রাচ্যের দীর্ঘদিনের বন্ধুপ্রতিম দেশ কাতারে ১৯৭৩ সাল থেকে জনশক্তি রফতানি হচ্ছে। বর্তমানে ৪ লাখের বেশি প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মরত আছেন সেখানে।

যাদের অধিকাংশই নির্মাণকাজের সঙ্গে জড়িত। ২০২২ সালের কাতার ফুটবল বিশ্বকাপের আগে শেষ হবে নির্মাণ খাতের

সব মেগা প্রজেক্ট। আর তাই করোনা-পরবর্তী সময়ে কাতারে নতুন শ্রমিক পাঠাতে দক্ষতার ওপর গুরুত্ব দেওয়ার তাগিদ প্রবাসীদের।

দীর্ঘ ৪০ বছরের বেশি সময় ধরে কাতারের সঙ্গে রয়েছে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সুসম্পর্ক। দীর্ঘদিনের সুসম্পর্ক থাকলেও দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত, পাকিস্তান, ফিলিপিন্সের চেয়ে পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ।

দেশটির নির্মাণ খাতে বাংলাদেশের বড় একটি যুক্ত থাকলেও কাতারের সরকারি-বেসরকারি খাতে বড় পদে নেই তেমন কোনো বাংলাদেশি। বাংলাদেশ থেকে দক্ষ ও শিক্ষিতরা না আসা এই পিছিয়ে থাকার কারণ বলে মনে করছেন প্রবাসীরা।

কাতারে অবস্থানরত একজন বাংলাদেশি বলেন, ‘কাজ না জেনে মধ্যপ্রাচ্যে আসার প্রয়োজন নেই। আপনারা যেসব কাজ জানেন সেসব কাজে আসেন। নিজস্ব দক্ষতা না থাকলে এখানে কোনো লাভ নেই।’

গত সাড়ে তিন বছরে তিন লাখের বেশি কর্মী কাতারে গেছেন। যাদের ৮০ শতাংশই অদক্ষ। ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে দক্ষ শ্রমিক পাঠানোর ওপর গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

কাতারে বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর ড. মোহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমরা দক্ষ শ্রমিক তৈরি ও বিদেশে পাঠানোর বিষয়ে গুরুত্ব দিচ্ছি।’

২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ ঘিরে গড়ে ওঠা নির্মাণ খাতের সব মেগা প্রজেক্ট শেষের পথে। আর তাই দক্ষ শ্রমিক ছাড়া বাকিদের হয়তো ফিরতে হতে পারে বাংলাদেশে।

COMMENTS

[gs-fb-comments]