বিমান ও সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে যাত্রী বহনের শ’র্ত শিথিল, যেতে পারবে আরও বেশি প্রবাসী

বিমান ও সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে যাত্রী বহনের শ’র্ত শিথিল, যেতে পারবে আরও বেশি প্রবাসী

সৌদি আরবে আকামা নবায়নে নতুন আইন করলো দেশটির সরকার
বিশ্বের বৃহত্তম ফুলের বাগানে
মাঝ আকাশে জন্ম নিল শিশু, আজীবন পাবে বিনামূল্যে টিকেট

দেশে এসে আটকে থাকা সৌদি প্রবাসীদের দ্রুততম সময়ের মধ্যে কর্মস্থলে ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। এই সিদ্ধান্ত শুধু সৌদিগামী ফ্লাইটগুলোর সিটে যাত্রী বহনের ক্ষেত্রে প্রযোগ্য।

আজ ৪ অক্টোবর রবিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বেবিচকের সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) মোহাম্মদ সোহেল কামরুজ্জামান।

তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে গমনের জন্য অপেক্ষমাণ প্রবাসীদের দু;রবস্থা নি’রসনে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ এর পক্ষ থেকে প্রতিটি ফ্লাইটে যাত্রী বহনের ক্ষেত্রে আ;রোপিত সংখ্যার সী;মাবদ্ধতা {বড় (প্রশস্ত) প্লেনে জন্য ২৬০ এবং ছোট (অপ্রশস্ত) বিমানের জন্য ১৪০} শিথিল করা হয়েছে।

এর ফলে এখন থেকে ঢাকা থেকে সৌদি আরবের বিভিন্ন গন্তব্যে চলাচলকারী সৌদি এয়ারলাইন্সের (সাউদিয়া) ও বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটগুলো আগামী ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত প্লেনভর্তি যাত্রী বহন করতে পারবে।

ঐ বার্তায় আরও বলা হয়েছে, যাত্রী বহনের বিষয়টি শিথিল করলেও এক্ষেত্রে স্বা;স্থ্যঝুঁকি বৃদ্ধির সম্ভাবনাকে কমানোর জন্য বেবিচক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

বেবিচক আশা করে যে, স্বা;স্থ্যবিধিগুলো আরও ক;ঠোরভাবে প্রতিপালনের মাধ্যমে এ শ;র্ত সাময়িক শি;থিল করার সিদ্ধান্তের সুযোগ গ্রহণ করে এ দুটি বিমান সংস্থা অপেক্ষমাণ যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছাতে সক্ষম হবে।

এর পূর্বে গত ১ অক্টোবর থেকে ক;রোনা পরিস্থিতিতে অতিরিক্ত স;তর্কতার অংশ হিসেবে ইন্টারন্যাশনাল ফ্লাইটগুলোর যাত্রী সংখ্যা নির্ধারণ করে দেয় বেবিচক।

ওয়াইড বডি অর্থাৎ বড় সাইজের এয়ারক্রাফটের ক্ষেত্রে একটি ফ্লাইটে সর্বোচ্চ ২৬০ জন এবং ন্যারো বডি বা মাঝারি আকারের এ;য়ারক্রাফটের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১৪০ জন বহন করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল।

বেবেচকের ঐ নির্দেশনায় অবশ্য প্লেনের ইকোনমি ক্লাসের শেষের এক সারি এবং বিজনেস ক্লাসের কমপক্ষে ১টি সিট (কোনো বিশেষ কারণ ছাড়া) করোনা স;ন্দেহভাজন রো;গীদের জন্য খালি রাখতে বলা হয়েছে।

COMMENTS

[gs-fb-comments]