ওমান থেকে ফিরেই মৃ;ত্যুকুলে ঢলে পড়লেন প্রবাসী বাংলাদেশি

ওমান থেকে ফিরেই মৃ;ত্যুকুলে ঢলে পড়লেন প্রবাসী বাংলাদেশি

ওসি প্রদীপের কাছ থেকে ছা’ড় পাইনি অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীও
করো;নায় ঘরে বসে গিনেস রেকর্ডসে নাম লেখালেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তরুণ
সবচেয়ে সস্তা ৫জি ফোন আনল রিয়েলমি

মৃ;ত্যু মাথার উপর দিয়ে ঘুরছে, একথা জেনেই হয়তো মায়ের কাছে ফিরছিলেন চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির যুবক ওমান প্রবাসী হালিম! চলতি মাসের ৩র অক্টোবর মায়ের কাছে ফিরেছিলেন তিনি।

মাকে অন্তত শেষবারের মতো দেখেই যেন মৃ;ত্যু;র ডাকে সাড়া দেবেন এমন প্রস্তুতিই ছিল বুঝি হালিমের। বাংলাদেশে ফেরার মাত্র ৯ দিনের মাথায় মৃ;ত্যু;ব;র;ণ করেন হালিম। সোমবার রাত সাড়ে বারোটায় নিজগৃহে শেষ নি:শ্বা;স ত্যা;গ

করেন এই রেমিট্যান্স যো;;দ্ধা (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃ;ত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৩৫ বছর।

টগবগে যুবক নুর নবী হালিম এমন সুঠাম দেহ দেখলে কারো বুঝার সাধ্য নেই যে, তার দু’টি কিডনীই ন;ষ্ট। জীবিকার তাগিদে প্রবাসে এসে যখন ম;রণব্যধীর মুখোমুখি, তখনো দেশে ফেরাটা ছিল তার অ;নিশ্চিত। কারণ তার ভিসা জ;টিলতা

ছিল। এক বছর পূর্বে প্রবাসে ডাক্তারে কাছে গিয়ে জানতে পারেন তার দু’টি কিডনিই ন;ষ্ট হয়ে যাওয়ার পথে, তবে টাকার অভাবে উন্নত চিকিৎসা কপালে জুটেনি তার ।

মৃ;ত্যু যখন সন্নিকটে তখনই মায়ের কাছে ছুঁটে যাওয়ার ব্য;কুলতা সৃষ্টি হয় তার মাঝে। সহযোগিতা চাইলেন ওমানে বাংলাদেশ দূতাবাসের। তার জ;টিল রো;গের কথা শুনে দূতালয়ের কর্মকর্তা মো.মাসুদ করিম তড়িগড়ি করে তাকে দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করে দিলেন।

নূর নবী হালিম ফটিকছড়ি পৌরসভার বারৈয়ারহাট সংলগ্ন নোয়াগাজির বাড়ির মৃ;ত আহম্মদ হোসেনের তৃতীয় পুত্র।

দীর্ঘদিন ওমানের হামরিয়াতে বসবাস করে আসছিলেন তিনি। ব্যক্তিজীবনে অবিবাহিত। শুধু হালিম নয়, ২০০৪ সালে তার

ছোট ভাই এভাবে কিডনী ন;ষ্ট হয়ে মা;রা গিয়েছিলেন। অল্প বয়সে দুইটি ছেলেকে এভাবে হারিয়ে বৃদ্ধা মা পা;গলপ্রায়।

হালিমের ভাগিনা সম্পর্কের মঈন উদ্দিন বলেন,’ মামাকে দেশে আসলে বিয়ে করাবেন এমন স্বপ্নে বিভোর ছিলেন নানু। অথচ ভাগ্যের কি নির্মম প;রিহাস দেশে আসলেন ঠিকই, তবে বিয়ে করতে নয়; লা;;শ হয়ে কবরে যেতে।

COMMENTS

[gs-fb-comments]