কষ্টে প্রতিটা দিন কাটছে, তবুও আমার স্বামীর চিকিৎসা করাতে হবে’

কষ্টে প্রতিটা দিন কাটছে, তবুও আমার স্বামীর চিকিৎসা করাতে হবে’

বাংলাদেশের মানুষের রোগ প্রতিরো’ধ ক্ষ’মতা অনেক বেশি
বিশ্বের দ্বিতীয় ধনকুবের ইলন মাস্কের লাইফ ও স্টাইল
শিক্ষকের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে মেয়র কন্যা ডা. অর্ণা জামান

ডায়াবেটিস, কিডনিসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ‘ইত্যাদি’ দিয়ে পরিচিত পাওয়া কণ্ঠশিল্পী আকবর। মাঝে ভারত গিয়ে চিকিৎসা করার পর অর্থনৈতিক সংকটের কারণে চিকিৎসা অসম্পূর্ণ রেখে ১৫ দিনের ঔষধ নিয়ে দেশে ফিরে আসেন

তিনি। কিন্তু বর্তমানে টাকা জোগাড় করতে গিয়ে নানা চড়াই-উৎরাই পেরুতে হচ্ছে তার পরিবারকে। এদিকে আকবর আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এ তথ্য জানিয়েছেন আকবরের সহধর্মিনী কানিজ ফাতিমা।

দেশে ফেরার ১৫ দিন পরই পুনরায় ভারতে যাওয়ার কথা ছিল আকবরের। কিন্তু যারা টাকা দিয়ে সহযোগিতা করতে চেয়েছিলেন তারা তা করেননি। এতে বিপাকে পড়ে যায় আকবরের পরিবার।

কানিজ ফাতিমা বলেন, আমি আসলে নিরুপায় হয়ে চিকিৎসকদের বলে ১৫ দিনের ঔষধ নিয়ে দেশে চলে এসেছিলাম। কারণ ভারতে যাওয়ার আগে অনেকেই পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। ভারতে যাওয়ার সময় কারো সাহায্য দরকার

ছিল না, তাই তখন নিইনি। ভেবেছিলাম দেশে এসে তাদের কাছে সাহায্য চাইব। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো অথৈর বাবার (আকবর) এই অসুস্থতা নিয়েও কিছু মানুষ আমাদের সঙ্গে খেলা করেছে।

অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে কষ্ট দিন অতিবাহিত করছেন কানিজ ফাতিমা। বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন- খুব কষ্টে প্রতিটা দিন যাচ্ছে। তারপরও আমাকে আমার স্বামীর চিকিৎসা করাতে হবে। কারণ আমাদের বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন অথৈর বাবা।

ভারতে যাওয়ার আগে অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছিলেন আকবর। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্থ সহায়তায় ভারতে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন তিনি। সে অর্থও শেষ হয়ে গেছে বলে জানান কানিজ ফাতিমা। গত বছর গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রধানমন্ত্রী আকবরকে চিকিৎসার জন্য ২০ লাখ টাকা (সঞ্চয়ী পত্র) অনুদান দেন।

খুলনার পাইকগাছায় জন্ম আকবরের। তবে বেড়ে উঠেছেন যশোরে। সেখানে রিকশা চালাতেন। ছোটবেলায় গানের হাতেখড়ি না হলেও ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির মাধ্যমে উঠে আসা আকবরের ভরাট কণ্ঠ শ্রোতাদের মন কাড়ে। সূত্রঃ ডেইলি বাংলাদেশ

COMMENTS

[gs-fb-comments]