আবদুল কাদের মানুষের হৃদয়ে বেঁ’চে থাকবেন: প্রধানমন্ত্রী

আবদুল কাদের মানুষের হৃদয়ে বেঁ’চে থাকবেন: প্রধানমন্ত্রী

হিজড়াদের জন্য মাদরাসা চালু হচ্ছে ঢাকায়
ঢাকা কলেজের অধ্যাপক আফরোজা সুলতানা আ’র নেই
কাতারে ১ম সংসদ নির্বাচনের ঘোষণা দিলেন আমির শেখ তামিম

জনপ্রিয় অভিনেতা আব;দুল কা;দেরের মৃ;;ত্যুতে গ;ভীর ;শো;ক ও দুঃখ ;প্র;কাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার এক শো;ক বার্তায় শেখ হাসিনা বলেন, সাবলীল ও স্বতঃস্ফূর্ত অভিনয়ের জন্য তিনি মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন।

প্রধানমন্ত্রী মর;হুমের আ;ত্মার মাগ;ফিরাত কামনা করেন এবং তার শো;কসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা ২০ মিনিটে রাজধানীর এভারকেয়ার হাস;পাতালে শেষ নিঃ;শ্বা;স ;;ত্যাগ করেন আবদুল কাদের। বিষয়টি নিশ্চিত করেন তার পুত্রবধূ জাহিদা ইসলাম জেমি।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে জেমি বলেন, ‘বাবা আর নেই। তার জন্য দোয়া করবেন।’ মৃ;;ত্যু;কালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। তিনি স্ত্রী এবং এক ছেলে ও মেয়েকে রেখে গেছেন।

প্যানক্রিয়াসের ক্যানসারে ভুগছিলেন আবদুল কাদের। উন্নত চিকি;ৎসার জন্য ৮ ডিসেম্বর চেন্নাইতে নেওয়া হয় আবদুল কাদেরকে। সেখানকার হাসপা;তালে পরী;ক্ষার পর ১৫ ডিসেম্বর তার ক্যানসার ধরা পড়ে। চিকি;ৎসকেরা জানিয়েছিলেন, তার অবস্থা সংকটাপন্ন, ক্যানসার সারা শরী;রে ছড়িয়ে পড়েছে। শারী;রিক দু;র্বলতা;র কারণে তাকে কেমোথে;রাপি দেওয়া হয়নি।

তার শারী;রিক অবস্থা কিছুটা ভালো হলে রোববার (২০ ডিসেম্বর) দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। দেশে ফে;রার পর আবদুল কাদেরের করোনা পরী;ক্ষা করা হলে পজে;টিভ আসে। তখ;ন তাকে করো;না ইউনিটে; রাখা হয়। এরপর এই অভিনেতার শারী;রিক অবস্থার অবনতি হলে করোনা ইউনিট থেকে তাকে হাস;পাতালের আইসিইউতে স্থা;নান্তর করেন চিকিৎ;সকরা। এরপর না ফেরার দেশে চলে যান অভিনেতা আবদুল কাদের।

COMMENTS

[gs-fb-comments]