ভারত মুক্তিযু’দ্ধে দ’য়া করেনি, তারা নিজেদের স্বার্থ উ’দ্ধার করেছে: জাফরুল্লাহ

ভারত মুক্তিযু’দ্ধে দ’য়া করেনি, তারা নিজেদের স্বার্থ উ’দ্ধার করেছে: জাফরুল্লাহ

ভক্তদের ধন্যবাদ জা’নিয়ে দুবাইয়ের পথ ধ’রলেন নাসির
জমজ বাছুর জন্ম দেয়ার প্রযুক্তি বাংলাদেশে
বিয়ে করেছেন চারবার, তাকে অনেকে বলেন ‘দ্বিতীয় পা’পিয়া’

ভা’রত মঙ্গল চায় না বলেই করো’নার ভ্যাকসিনের দাম তাদের দেশে ২ ডলার এবং বাংলাদেশে ৬ ডলার নির্ধারণ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘দেশ বাঁ’চাও মানুষ বাঁ’চাও আ’ন্দোলন’ আয়োজিত ‘বাংলাদেশ-ভা’রত স’ম্পর্ক ও আমাদের জাতীয় স্বার্থ’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

দেশের অধিকাংশ মানুষ করো’নাভাই’রাসের টিকা পাবেন না দাবি করে জাফরুল্লাহ বলেন, দেশে পর্যাপ্ত করো’নার ভ্যাকসিন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে মূল বাধা ভা’রত। ভা’রত করো’নার ভ্যাকসিনের জন্য অক্সফোর্ডের সাথে চুক্তি করেছে। তারা শর্ত দিয়েছে এ অঞ্চলের সবাইকে ভা’রতের কাছ থেকে টিকা নিতে হবে।

টিকা প্রাপ্তিতে সরকার নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূসকে কাজে লাগাতে পারে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ড. ইউনূস যদি চান নিরাপদে আম’রা ভ্যাকসিন তৈরির সুযোগ পাবো। আমি নিশ্চিত, সরকার যদি তাকে অনুরোধ করেন তাহলে তিনি অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের তথ্য পেতে সাহায্য করতে পারবেন।

জাফরুল্লাহ বলেন, কম্পোলসারি লাইসেন্সের আওতায় অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের সব তথ্য আম’রা পেতে পারি এবং আমাদের দেশে আগামী ছয় মাসের মধ্যে পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন তৈরি হতে পারে। কিন্তু এটার মূল বাধা ভা’রত। তিনি বলেন, অক্সফোর্ডের সঙ্গে ভা’রতের সিরাম ইনস্টিটিউটের একটা চুক্তি রয়েছে যে অক্সফোর্ড এই ফর্মুলা এশিয়া অঞ্চলের কাউকে দিতে পারবে না। ভা’রত বন্ধুর আদলে মহাজনি প্রথা চালু রেখেছে এখনো।

তিনি আরও বলেন, ভা’রতের কাছে আম’রা কৃতজ্ঞ তারা আমাদের মুক্তিযু’দ্ধে সাহায্য-সহযোগিতা করেছে। কিন্তু তারা দয়া করেননি, তারা নিজেদের স্বার্থ উ’দ্ধার করেছে। ভা’রত রক্ষার জন্য ২৫ বছর তাদের যে ব্যয় হতো, বাংলাদেশ রক্ষার ফলে তারা এক বছরে তা উঠিয়ে নিয়েছে।

তারা আমাদের কী’ দিয়েছে? আমাদের গণতন্ত্রকে হ’ত্যা করেছে। জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ভা’রত বাংলাদেশে গণতন্ত্র চায় না। ভোট কারচুপির ষড়যন্ত্র ভা’রতে হয়েছে। ভা’রত বাংলাদেশকে অধীনস্ত রাষ্ট্র বানিয়ে রাখতে চায়।

এ সময় বিএনপির কড়া সমালোচনা করে তিনি বলেন, গণতন্ত্রের জন্য বিএনপির যে ভূমিকা থাকার কথা ছিল তা বিএনপির নেই। বিএনপির ভ’য় কিসের। আওয়ামী লীগের চেয়ে বেশী মুক্তিযোদ্ধা বিএনপিতে রয়েছে। বিএনপির উদারতার পরিচয় দিতে হবে। সবাইকে সাথে নিয়ে রাস্তায় নামতে হবে।

এর কোনো বিকল্প নেই। সংগঠনের সভাপতি কে এম রাকিবুল ইস’লাম রিপুর সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা মেজর (অব.) সরওয়ার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর ড. আব্দুল লতিফ মাসুম, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু।

COMMENTS

[gs-fb-comments]