ভিটে বেচে মু’ক্তিযু’দ্ধের ভাস্কর্য নি’র্মাণ!

ভিটে বেচে মু’ক্তিযু’দ্ধের ভাস্কর্য নি’র্মাণ!

এবার ১২ বছরের স্কুলছাত্রীকে বিয়ে করলেন ৬০ বছরের বৃদ্ধ
ভক্তদের ধন্যবাদ জা’নিয়ে দুবাইয়ের পথ ধ’রলেন নাসির
মাধ্যমিকের ৬ হাজারেরও বেশি শিক্ষক পাচ্ছেন পদোন্নতি

সাহেব আলী পেশায় রাজমিস্ত্রি। মু’ক্তিযু’দ্ধভিত্তিক ৭১টি ভা’স্কর্য বানাতে গিয়ে তার প্রথম সংসার ভে’ঙে গেলেও ছাড়েননি নি’র্মাণ কাজ। নতুন প্রজ’ন্মকে মু’ক্তিযু’দ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত ক’রতে এক এক করে ৬৬টি মু’ক্তিযু’দ্ধভিত্তিক ভাস্কর্য বানিয়েছেন। কোনো অনুদান নয়, নিজে’র বসতভিটে বিক্রি করে নিরক্ষর এ মানুষটি এ মহৎ ক’র্ম সম্পাদন করছেন।

আরো ৫টি ভাস্কর্য নি’র্মাণাধীন, তবে প্রয়োজন অর্থ। সাহেব আলীর এ হস্তশিল্প দে’খতে অগণিত মানুষের ভিড় জমে তার গ্রামের বাড়িতে। পটুয়াখালী সদর উপজে’লার আউলিয়াপুরের অজপাড়াগাঁয়ের মৃ’ত আব্দুল আজিজে’র ছেলে সাহেব আলী। দ্বিতীয় স্ত্রী পিয়ারা, ছেলে হাসান-হোসেন এবং মেয়ে নিলিমা ও নিলুফাকে নিয়ে সাতান্ন বছরের কোঠায় তিনি।

এক ছেলে সড়ক দু’র্ঘট’নায় আ’হ’ত হয়ে প্রতিব’ন্ধী। ১৯৯৬ সালে মুন্সীগঞ্জে’র একটি চালের মিলে ক’র্মরত অব’স্থায় সহক’র্মী (বিরাঙ্গনা) রাহিমা’র কাছে ৭১’র কা’হিনী শুনে মু’ক্তিযু’দ্ধভিত্তিক ভাস্কর্য বানাতে উদ্বু’দ্ধ হন। নতুন প্রজ’ন্মের কাছে স্বাধীনতার ইতিহাস, ঐতিহ্য তুলে ধ’রতে এ নীরব সংগ্রামে নামেন তিনি।

কখনো অর্ধাহারে, কখনো অনাহারে দিন পার করে ভাস্কর্য বানানোর কাজে নিজেকে নিয়োজিত রাখেন। সরকারি বা কোনো দা’তা সংস্থা তার এ শিল্পক’র্মের কাজে সহায়তা দিলে স্বাধীনতার অজা’না ইতিহাস, ঐতিহ্য ভালোভাবে তুলে ধ’রার সুযোগ পাবেন বলে আশা করেন তিনি।

COMMENTS

[gs-fb-comments]