গােলাপ গ্রাম, সাদুল্লাহপুর

গােলাপ গ্রাম, সাদুল্লাহপুর

আমাদের জন্য অতিরিক্ত বোঝা রোহিঙ্গারা : প্রধানমন্ত্রী
এবার গাংনী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্সের নাচের ভিডিও ভাইরাল
কুষ্টিয়ায় রেস্তোরাঁর পিৎজা-বার্গার খেয়ে ২৫ জন অ’সুস্থ

শহুরে যান্ত্রিক জীবন থেকে একটু বিশ্রামের জন্য বা শারীরিক ক্লান্তি অথবা মানসিক অবসাদ দূর করার জন্য আমরা অনেক জায়গাতেই | তাে ঘুরতে যাই। তবে সবসময় দূরে কোথাও ঘুরতে যেতে যেমন সময় লাগে তেমনি খরচও হয় বেশি।

খরচের থেকেও সময় ম্যানেজ করাটাই হয়ে উঠে প্রধান প্রতিবন্ধকতা। তাই কম সময়ে কাছে কোথাও ঘুরে আসতে পারবেন এমন অনেক জায়গাই আছে ঢাকার আশে পাশে। তারমধ্যে খুব সুন্দর আর মন ভালাে করে দেয়ার মতাে একটি জায়গা হলাে গােলাপ গ্রাম (Golap Gram, Sadullahpur) যা ঢাকার অদূরে সাভারের

বিরুলিয়া ইউনিয়নে অবস্থিত। ঢাকার খুব কাছেই সাভারের তুরাগ নদীর তীরে সাদুল্লাপুরের অবস্থান। বিশ্বাস রাখতে পারেন, এই গ্রাম আপনার যান্ত্রিক জীবনের অনেকটা ক্লান্তিই দূর করে দিবে।

| পুরােটা গ্রামটাই যেন গােলাপের বাগান! উঁচু জমিগুলাে ছেয়ে আছে মিরান্ডি জাতের গােলাপে। লাল, হলুদ, সাদা—কত বর্ণের যে গােলাপ
তার কোনাে ইয়ত্তা নেই। যতদূর যাবেন গােলাপে ঢাকা চারপাশ আপনাকে মুগ্ধ করে রাখবে। সকালের শিশির ভেজা গােলাপে নরম আলাের ঝিকিমিকি।

গ্রামের বুক চিরে চলে গেছে আঁকাবাকা সরু পথ। তার দু’পাশে বিস্তীর্ণ গােলাপের বাগান। ফুটে আছে টকটকে লাল গােলাপ। গ্রামে ছড়িয়ে পড়েছে গােলাপের সৌরভ। এখানের যেকোনাে বাগান থেকে কথা বলে আপনি গােলাপ কিনে নিতে পারেন। তবে ওরা ওখানে ১০০-১৫০ এর কম গােলাপ বিক্রি করতে চায় না।।

সাহদুল্লাহপুর পুরাে গ্রামটাই নানা রঙের গােলাপ ফুল দিয়ে ঘেরা। এটাকে গােলাপ গ্রাম বলা হলেও এখানে গােলাপ ছাড়াও অনেক ফুল আছে, যেমন- জারভারা, গ্লাডিওলাস। ঢাকার বেশি ভাগ ফুল চাহিদা এখান থেকে মেটানাে হয়। শাহবাগসহ রাজধানীর বিভিন্ন ফুলের | বাজারগুলােতে গােলাপের প্রধান যােগান দেন

গােলাপ গ্রাম ভ্রমণের উপযুক্ত সময়

সাদুল্লাহপুরে প্রায় সারা বছর জুড়ে গােলাপ চাষ হয় বলে আপনি গােলাপ গ্রাম ঘুরতে যেতে পারেন যে কোন সময়। তবে বছরের সবটা। সময় জুড়ে গােলাপের তেমন দাপট কিন্তু থাকে না। বাংলাদেশের ঋতু বৈচিত্র এর দিক বিবেচনা করলে শীতকালই হচ্ছে গােলাপ ফুল ফেঁাটার সেরা সময়।

শীতকালে গােলাপ ফুল অনেক বড় ভাবে পরিস্ফুটিত হয়ে থাকে এবং তখন সাদুল্লাহপুরের সব বাগনই গােলাপে ভরে । থাকে। তাই গােলাপ গ্রাম ভ্রমণের সেরা সময় বিবেচনা করলে শীতকালকেই বেছে নেয়া উত্তম।

গােলাপ গ্রাম যাওয়ার উপায়।

Time needed: 1 hour and 41 minutes. বিভিন্ন রুটে গােলাপ গ্রাম বা সাদুল্লাহপুর যাওয়া যায়। তবে সব থেকে বেস্ট রুট হচ্ছে বিরুলিয়া ব্রিজ এর রুট। কারণ এই পথে দারুণ সব । গােলাপের ক্ষেত। রাস্তার দুপাশ জুড়েই। একেবারে পুরাে রাস্তা। অটো থামিয়ে থামিয়ে সবগুলাে গােলাপের বাগান কাভার করতে পারবেন।

গােলাপের হাট স্থানীয় ফুল চাষিরা নিজেদের প্রয়ােজনে এ গ্রামেই গড়ে তুলেছেন হাট। শ্যামপুর গ্রামে প্রতি সন্ধ্যায় বসে গােলাপের হাট। সেখানকার আবুল কাশেম মার্কেটের সামনে সন্ধ্যায়ই শুরু হয় ফুল ব্যবসায়ীদের আনাগােনা। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অসংখ্য ব্যবসায়ী এসে ভিড় জমান সেখানে।

জমতে থাকে বেচাকেনা। চলে গভীর রাত পর্যন্ত। এ ছাড়া মােস্তাপাড়ায় রয়েছে সাবু মার্কেট। এ মার্কেটেও গােলাপ বেচা কেনা হয়। গােলাপের চাহিদা থাকে সব সময়। তাই চাষিরাও সারা বছরই ব্যস্ত থাকেন। বিশেষ উৎসবের দিনগুলােতে চাহিদা বেড়ে যায় বহুগুণ।

COMMENTS

[gs-fb-comments]