আর্জেন্টিনা ভক্তের ছোট্ট ‘মেসি’র দাম ১০ লাখ

আর্জেন্টিনা ভক্তের ছোট্ট ‘মেসি’র দাম ১০ লাখ

বাঙালি হয়ে ওঠার সাক্ষী বাঙলা কলেজ
বাংলাদেশে সবধর্মের মানুষের সমান অধিকার রয়েছে: শেখ হাসিনা
৮ম শ্রেণির ছাত্রী মাত্র ৫ মাসে হাতে লিখল পুরো কুরআন

নেত্রকোনার আজিজুর রহমান। পেশায় সরকারি চাকরিজীবী হলেও পশুপাখি পালনের প্রতি আগ্রহ রয়েছে তার। বছরখানেক আগে একটি ষাড় কিনে নাম রেখেছিলেন ‘মেসি’।নিজে আর্জেন্টিনার সমর্থক হওয়ায় এই নাম রাখেন আজিজ। এবার কুরবানির ঈদে মেসিকে বিক্রি করতে ১২ লাখ টাকা হাঁকান তিনি। ৩৭ কেজি ওজনের, ২৭ ইঞ্চি চওড়া আর ২৪ ইঞ্চি লম্বা

 

‘ছোট্ট’ মেসির দাম উঠেছে ৪ লাখ, কিন্তু এখনই মেসিকে ছাড়ছেন না তিনি। ১০ লাখ দাম বললেই ছেড়ে দেবেন। চার বছর বয়সের এটাই দেশের সবচেয়ে ছোট ষাঁড় বলে দাবিও মালিকের।

 

শখের বশে এক বছর আগে তিন বছর বয়সী ষাঁড়টি কেনেন আজিজুর। ক্ষিপ্র গতির বলে নাম রাখেন ‘মেসি’। স্থানীয় উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মেলায় মেসির নাম ছড়িয়ে পড়ে এলাকাজুড়ে।

 

স্থানীয় কৃষক রকিবুল ইসলাম বলেন, গরুটি আকারে ছোট হইলেও দৌড়ে সেরা। এর শক্তিও অনেক। ছাড়া পেলে সহজে ধরা যায় না। ধরে রাখতে দুজন মানুষ লাগে।

 

মেসির মালিক আজিজুর রহমান বলেন, আমি খালিয়াজুরীতে সরকারি চাকরি করি। সেখানেই খর্বাকৃতির ষাঁড়টির সন্ধান পাই। এটির মালিক ছিলেন একজন কৃষক।

 

তার গাভিকে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস থেকে বীজ দেওয়ার পর এই খর্বাকৃতির ষাঁড়টির জন্ম হয়। প্রায় এক বছর আগে ওই কৃষক থেকে ষাঁড়টি কিনে আনি। এটির চালচলন দেখে নাম দেই মেসি। এলাকার সবাই দেখতে আসায় আমার খুব ভালো লাগে। কিছুদিন আগে মেসিকে মেলায় তুলেছিলাম। তখন দাম উঠেছিল চার লাখ টাকা।

 

তিনি দাবি করেন, মেসির উচ্চতা মাত্র ২৭ ইঞ্চি, লম্বায় ২৪ ইঞ্চি, বয়স চার বছর। আর ওজন ৩৭ কেজি। চার বছর বয়সের এটাই দেশের সবচেয়ে ছোট্ট ষাঁড়। দাম ১০ লাখ উঠলে শখের মেসিকে বিক্রি করে দেবেন আজিজুর।

 

কেন্দুয়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. খুরশেদ দেলোয়ার বলেন, গরুটির মা-বাবা বড় আকারের হলেও জেনিটিক কারণে এটি ছোট হতে পারে। আকারে ব্যতিক্রম হওয়ায় এর চাহিদা বেশি রয়েছে। আমরা নিয়মিত খোঁজখবর রাখি। খর্বাকৃতির ষাঁড়টি আমাদের প্রাণিসম্পদ অফিসের মেলায় তোলার পর থেকেই এটির বিষয়ে স্থানীয়রা জানতে পেরেছে।

COMMENTS

[gs-fb-comments]