ঢাকা-কুয়ালালামপুর ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক হবে

ঢাকা-কুয়ালালামপুর ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক হবে

ভৌতিক বিদ্যুৎ বিল নিয়ে যা বললেন ব্যারিস্টার সুমন
আমার কাছে রাস্তাঘাট-ব্রিজ, স্কুল-কলেজের ফাইল দেরিতে পৌঁছায় : পরিকল্পনামন্ত্রী
২০ বছরের কারাদণ্ড, রায়ের সময় যা করলেন পাপিয়া

মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী এম কুলাসেগারানের বাংলাদেশ সফর স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি রাতে তার ঢাকায় আসার কথা ছিল। কিন্তু হঠাৎ জরুরি কাজের জন্য তিনি আপাতত বাংলাদেশে আসছেন না বলে গতকাল মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের মাধ্যমে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদকে জানানো হয়।

তবে বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার খোলা নিয়ে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, কুলাসেগারানের সফর স্থগিত হলেও ২৪ ফেব্রুয়ারি যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এই বৈঠকে অমীমাংসিত ইস্যুর সমাধান হলে পরবর্তীতে কুলাসেগারান বাংলাদেশে আসতে পারেন।

গত ১৩ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়ার মন্ত্রীর বাংলাদেশ সফর কর্মসূচির একটি অফিসিয়াল চিঠিতে ১৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকাকে জানানো হয়। কুলাসেগারানের বাংলাদেশ সফরের কর্মসূচিতে মালয়েশিয়া শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে বৈঠক ছাড়াও কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যাওয়ার কথা ছিল। এছাড়া সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন ও প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদের সঙ্গে বৈঠকের কর্মসূচি ছিল।

মালয়েশিয়ার শ্রমমন্ত্রীর সফর বাতিল হলেও আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক নিয়ে আশাবাদী বাংলাদেশ। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এই বৈঠকের মধ্য দিয়ে পুনরায় মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর পথ খোলার আশা করা হচ্ছে।

পুনরায় মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ ছাড়াও বেশ কয়েকটি কারণে এই বৈঠকটি বেশ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। বিশেষ করে বাংলাদেশি কর্মীদের শূন্য অভিবাসন ব্যয়ে মালয়েশিয়া যাওয়ার বিষয়টি পরিষ্কার করে নেবে ঢাকা।

বাংলাদেশের জনশক্তি রপ্তানির অন্যতম বাজার মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানো বন্ধ ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর থেকে। এরপর বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমেদ কূটনৈতিক উপায়ে দেশটিতে শ্রমবাজার উন্মুক্ত করতে কয়েক দফা মালয়েশিয়া সফর করেন এবং গঠন করে দেন জয়েন্ট ওয়ার্কিং কমিটির বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল।

এরই ধারাবাহিকতায় গত বছরের ৩ নভেম্বর দেশটির রাজধানী কুয়ালালামপুরে দুই দেশের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে মন্ত্রী ইমরান আহমদ বাংলাদেশের সাত-সদস্যের এবং মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসেগারান তার দেশের আট-সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন।

শ্রমবাজার খোলা নিয়ে গত ৩ থেকে ৬ নভেম্বর মালয়েশিয়ায় দুই দেশের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে ২৪ ও ২৫ নভেম্বর ঢাকায় জয়েন্ট ওয়ার্কিং কমিটির পরের দফা আলোচনার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। কিন্তু শেষ সময়ে নিজেদের অভ্যন্তরীণ সমস্যা দেখিয়ে বৈঠক স্থগিত করে মালয়েশিয়া। তবে স্থগিত বৈঠক নিয়ে সব সময় যোগাযোগ রেখেছে ঢাকা।

এরপর গত বছরের শেষদিকে বাজার খোলা নিয়ে মালয়েশিয়ার প্রতিনিধিদল ঢাকায় আসার কথা ছিল। আর এ নিয়ে শ্রমবাজার খোলা নিয়ে আলোর ঝলকানি দেখা দেয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা আর হয়নি।

COMMENTS

[gs-fb-comments]