১৫ মার্চ থেকে দেশে আসছে ভারতের পেঁয়াজ

১৫ মার্চ থেকে দেশে আসছে ভারতের পেঁয়াজ

৭৩ কোটি টাকার ফুল বিক্রির টার্গেট
ইতিহাসে রেকর্ড গড়ল বাংলাদেশের আলুর
ব্যাংক লেনদেনের সময়সূচি আরেক দফা বদল

পেঁয়াজ রফতানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত। সোমবার ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগের মহা পরিচালক (ডিজি) একটি পরিপত্র জারি করেছে। এতে বলা হয়েছে আগামী ১৫ মার্চ থেকে বাংলাদেশে ভারতের পেঁয়াজ রফতানি শুরু হবে।

আমদানিকারকরা বলছেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আসলে দাম কমে যাবে। ইতিমধ্যে দিনাজপুরসহ একাধিক জেলায় পেঁয়াজের দাম অর্ধেকে নেমে এসেছে। আশা করা যাচ্ছে আর কয়েক দিনের মধ্যে খুচরা বাজারে ভোক্তারা প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২০-৩০ টাকার মধ্যে কিনতে পারবেন।

রাজধানীর সর্ববৃহৎ পাইকারি আড়ত শ্যামবাজারের পেঁয়াজ আমদানিকারক শংকর চন্দ্র ঘোষ যুগান্তরকে বলেন, রফতানির জন্য ভারত ইতিমধ্যে সবকিছু ঠিক করে ফেলেছে। আর এই সংবাদের পর সীমান্ত এলাকায় ভারতীয় পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক ভিড়তে শুরু করেছে। কয়েকটি সীমান্তবর্তী এলাকায় পেঁয়াজের দামও কমে গেছে। এর প্রভাব রাজধানীর বাজারেও পড়বে। আশা করি ভোক্তা কয়েকদিনের মধ্যে ২০ থেকে সর্বোচ্চ ৩০ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ কিনতে পারবে।

এদিকে ভারতের ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান এক্সপোর্ট অর্গানাইজেশনের একটি সূত্র বলছে, মার্চের ১৫ তারিখ থেকে নিশ্চিত ভাবে পেঁয়াজ রফতানি শুরু হবে। এর জন্য সকর প্রক্রিয়া ঠিক করা হয়েছে। ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় তাদের পেঁয়াজ রফতানিতে অনুরোধ করেছে। এই অনুরোধের ভিত্তিতে রফতানির জন্য ২০ জনের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এর আগে ২৬ ফেব্রুয়ারি বুধবার দেশটির খাদ্য ও ভোক্তাবিষয়ক মন্ত্রী এক টুইট বার্তায় এ তথ্য জানায়। সে সময় মন্ত্রী বলেন, যেহেতু পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রয়েছে এবং এ বছর প্রচুর উৎপাদিত হয়েছে।

তাই সরকার পেঁয়াজ রফতানির নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মার্চ মাসের প্রত্যাশিত উৎপাদন আশা করা হচ্ছে ৪০ লাখ মেট্রিক টন। যা গত বছর একই সময় ছিল ২৮.৪ লাখ মেট্রিক টন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৩ সেপ্টেম্বর ভারত রফতানি মূল্য দ্বিগুণ করে প্রতি টন ৮৫০ ডলার করার পর হুট করে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায়। ২৯ সেপ্টেম্বর রফতানি বন্ধ করে দিলে পেঁয়াজের দাম বাড়তে থাকে হু হু করে। এক দিনের মধ্যে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজের দাম ১০০ টাকা হয়ে যায়।

আর অক্টোবরে এই পেঁয়াজ বিক্রি হয় ১৫০ থেকে ১৭০ টাকা দরে। ওই মাসের শেষভাগে মিয়ানমার থেকে আমদানি বাড়িয়ে পেঁয়াজের দাম ফের ১০০ টাকার কাছাকাছি নিয়ে এলেও ৯ নভেম্বর পর ২০০ টাকা ছাড়িয়ে যায় প্রতি কেজি।

সব রেকর্ড ভেঙে রাজধানীতে একপর্যায়ে ২৫০-২৬০ টাকা পর্যন্ত পেঁয়াজ বিক্রি হয়। আর দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পেঁয়াজের দাম সর্বোচ্চ ৩০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়। বাজার সামাল দিতে চীন, মিসর, তুরস্ক ও পাকিস্তান থেকে পেঁয়াজ আমদানি করতে হয়।

COMMENTS

[gs-fb-comments]