সুযোগ পেলে এই ভুলটা করতাম নাঃ শার্লিন ফারজানা

সুযোগ পেলে এই ভুলটা করতাম নাঃ শার্লিন ফারজানা

বড় হয়ে ছেলে কী হবে? আগেই ঠিক করলেন শাকিব-অপু
ওসব মনে পড়লে এখনো বড্ড হাসি পায়: জাকিয়া বারী মম
সঞ্জয় দত্তের সাথে বাস্তবে শুয়েছিলেন যে নায়িকারা

দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে দেশের প্রেক্ষাগৃহে দেখানো হচ্ছে নতুন চলচ্চিত্র ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’। ছবিতে নীরা চরিত্রে

অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছেন শার্লিন ফারজানা। এরই মধ্যে খবর এসেছে, মাসের শেষ দিকে অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে প্রদর্শিত হবে ছবিটি। অথচ ছবি মুক্তির আগমুহূর্ত থেকে এখন পর্যন্ত ফেসবুক ছাড়া আরও কোনো ধরনের প্রচারণায় দেখা যায়নি শার্লিনকে। এসব নিয়ে ফারজানার সঙ্গে কথা।

প্রশ্নঃ কোথায় ডুব দিলেন? নায়ক, পরিচালকসহ অন্যরা যেখানে ছবির প্রচারণায় ব্যস্ত, তখন আপনি একদম নিরুদ্দেশ ছিলেন।

উত্তরঃ আমি হাসপাতালে। মা হয়েছি। মা হওয়ার আগমুহূর্তের সময়টুকু আমি নিজেকেই দিয়েছি। তাই শারীরিকভাবে ছবির প্রচারণায় অন্যরা যেভাবে অংশ নিয়েছেন, আমি তা পারিনি। ফেসবুকে যতটা সম্ভব করেছি।

প্রশ্নঃ ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ সেই কষ্ট তাহলে লাঘব করেছে। দর্শক এরই মধ্যে নীরা চরিত্রটি পছন্দ করেছেন। নতুন কোনো স্বপ্ন তৈরি হয়েছে?

উত্তরঃ অবশ্যই লাঘব হয়েছে। আমি মনে করি এটাই আমার প্রথম সিনেমা। এই ছবিতে কাজ করতে এসে আমি অনেক কিছু শিখেছি। আমি চলচ্চিত্রে যদি সামান্য কিছুও করে থাকি, তা আমার পরিচালকের অবদান। আমি নাটকে কাজ

করেছি, সেখানে শেখার জায়গাটা একেবারে ছিল না বললেই চলে। গতানুগতিক কাজ করেছি। ছবিতে কাজ করতে এসে মনে হচ্ছে আমি কাদামাটি, আমাকে পরিচালক গড়ে তুলেছেন। তিনি নীরা চরিত্রটি সুনিপুণ হাতে তৈরি করেছেন। ছবিটি

দর্শক পছন্দ করার পর আমার দায়বদ্ধতা অনেক বেড়ে গেল। আগে কাজের সময় অতটা মনোযোগী ছিলাম না, এখন আরও মনোযোগী হব। আমার এখন মনে হয়, ইশ, আর একবার শুটিংটা করার সুযোগ যদি পেতাম, তাহলে মনপ্রাণ উজাড় করে কাজটা করতে পারতাম।

প্রশ্নঃ শুনেছি আপনি তখন নাকি পরিচালককে অনেক ভুগিয়েছিলেন?
উত্তরঃ আমি এখন আর ওসব কথা মনে করতে চাই না। শুধু একটা কথাই বলতে চাই, আরেকবার সুযোগ পেলে এ ভুলটা করতাম না। আমি তখন মিসগাইডেড ছিলাম।

প্রশ্নঃ আপনার বিয়েটা ‘গোপনে’ করতে হলো কেন?
উত্তরঃ প্রথমত আমার সঙ্গে যার বিয়ে হয়েছে, তার সঙ্গে আমার কোনো প্রেমের সম্পর্ক ছিল না। পুরো ব্যাপারটা এত

দ্রুত ঘটেছে যে সেভাবে গুছিয়ে বিনোদন অঙ্গনের কাউকে জানানোর সুযোগ পাইনি। পুরো কাজটা খুব তাড়াহুড়ো করে

হয়ে গেছে। তবে এটা ঠিক আমাদের পরিকল্পনা ছিল, বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠান করার। এরপর আবার করো;না মহা;মা;রি শুরু হয়ে গেল। তাই হয়ে উঠল না।

COMMENTS

[gs-fb-comments]