স্বামী নয়, অভিনেত্রীর পেটে সাবেক প্রেমিকের সন্তান

স্বামী নয়, অভিনেত্রীর পেটে সাবেক প্রেমিকের সন্তান

বজরঙ্গীর সেই ছোট্ট মুন্নি এখন অনেক বড়, ছবি ভাইরাল (ছবি সহ)
সুশান্তের ৯ কোটির ডিপোজিট ভাঙেন রিয়া, মুছেন জরুরি চ্যাটও
হাসপাতালে ভর্তি ডিপজল, সকালে অপারেশন

মনে হচ্ছে, ‘বিতর্কের রানি’খ্যাত ভারতের মডেল-অভিনেত্রী রাখি সায়ন্ত ও অন্তর্জাল তারকা দীপক কালালের নাটক কোনোদিন শেষ হবে না। বিয়ে নিয়ে নানা লুকোচুরির পর কয়েক দিন আগে এক অনাবাসী ভারতীয় (নন-রেসিডেন্ট ইন্ডিয়ান—এনআরআই) ব্যবসায়ী রিতেশকে বিয়ের কথা স্বীকার করেন রাখি সায়ন্ত। শুধু তা-ই নয়, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মধুচন্দ্রিমার ছবিও শেয়ার করেন রাখি। কপালে সিঁদুর পরে লাগাতার ছবি পোস্ট করেন। এ বিয়েও কি ভুয়া? এমন জল্পনাও রয়েছে।

একবার দীপক কালালকে বিয়ে করতে চলেছেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন রাখি সায়ন্ত। দুজন বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রও সোশ্যালে প্রকাশ করেছিলেন। পরে সেই বিয়ে ভেস্তে যায়। এ নিয়ে কম কাণ্ড করেননি রাখি-দীপক। যা হোক, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সম্প্রতি দীপক কালাল অভিযোগ করেছেন, রাখি দুই মাসের অন্তঃসত্ত্বা আর সেই অনাগত সন্তানের জনক তিনি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এক ভিডিও বার্তায় দীপক বলেছেন, একেবারেই দায়িত্বজ্ঞানহীন অন্তঃসত্ত্বা রাখি, যা তাঁদের অনাগত সন্তানের ক্ষতির কারণ হতে পারে। এদিকে, সম্প্রতি দীপকের সঙ্গে বিয়ে নিয়ে রাখিকে জিজ্ঞেস করা হলে গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি বলেন, দীপক তাঁর কাছে ভাইয়ের মতো।

পত্রপত্রিকার খবর, ২৮ জুলাই বিকেলে মুম্বাইয়ের পাঁচতারকা হোটেল জে ডব্লিউ ম্যারিয়টে গোপনে রিতেশ নামের ওই ব্যক্তির সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন রাখি সায়ন্ত। বিয়ের খবর এড়াতেই লুকিয়ে বিয়ে করেছেন।

পরে অবশ্য টাইমস অব ইন্ডিয়াকে রাখি বলেন, ‘আমি ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু হ্যাঁ, আমি বিয়ে করেছি। এ খবর আমি আপনাদের নিশ্চিত করছি। ওর নাম রিতেশ।’

বিনোদন সংবাদমাধ্যম স্পটবয়কে রাখি বলেন, ‘আপনারা যে রিপোর্ট করেছেন, তা সত্যি। আমার স্বামী একজন এনআরআই। ওর নাম রিতেশ, যুক্তরাজ্যে থাকে। এরই মধ্যে অবশ্য সে চলে গেছে। আমার ভিসা-প্রক্রিয়া চলছে, আমিও ওর কাছে যাব।’ রাখি আরো জানান, ভারতে তিনি কাজ করবেন। টিভি শো প্রযোজনা করবেন। স্বামী হিসেবে তাঁকে পেয়ে উচ্ছ্বসিত।

রাখি জানান, রিতেশ হিন্দু ধর্মাবলম্বী ও তিনি খ্রিস্টান। তাই তাঁরা ‘কোর্ট ম্যারেজ’ করেছেন। ক্যাথলিক নিয়ম অনুযায়ীও বিয়ে করেছেন। পরিবারের লোকজন ও ঘনিষ্ঠরা বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন। যা হোক, অনেকের বিশ্বাস, রাখির বিয়ের ঘোষণা ভুয়া এবং তা প্রচারের কৌশল ছাড়া আর কিছু নয়।

এর আগে, রাখি ও দীপক বিয়ের ঘোষণা দিয়েছিলেন। কয়েক দিন পর বিয়ের নিমন্ত্রণপত্র প্রকাশ করেন তাঁরা। সে সময় দীপক জানান, রাখি এখনো ‘কুমারী’। অর্থাৎ রাখির সঙ্গে যে তাঁর কোনো যৌনসম্পর্ক ছিল না, সেটাই ছিল দীপকের ভাষ্য। রাখিকে ‘পবিত্র’ও বলেছিলেন দীপক। কিন্তু এখন উল্টো সুর দীপকের। দেখা যাক, তাঁদের নাটক কত দূর গড়ায়!

129

COMMENTS

[gs-fb-comments]