কঙ্গনাকে ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা দেয়া নিয়ে বিতর্ক

কঙ্গনাকে ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা দেয়া নিয়ে বিতর্ক

শাকিবের নায়িকা ভারতের সংসদ সদস্য নুসরাত জাহান
ঊর্মিলাকে পর্ন অভিনেত্রী বললেন কঙ্গনা
বলিউডের ইলেকট্রিক্যাল মিউজিকে সাব্বির-নাসির

হুমকির মুখে বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউতের মুম্বাইয়ে ফেরা। ৯ সেপ্টেম্বর তার মুম্বাইয়ে ফেরার কথা রয়েছে। কিন্তু শিবসেনার সদস্যরা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, কঙ্গনাকে মুম্বাই ঢুকতে দেয়া হবে না। এর বিপরীতে নায়িকা জানান, আমি মুম্বাই বিমানবন্দরে নেমে টুইট করে সবাইকে জানাবো। কারো বাপের ক্ষমতা থাকলে যেন আমাকে আটকায়।

কঙ্গনার এমন মন্তব্যে আরও ক্ষেপেছে শিবসেনারা। গোটা মুম্বাই জুড়ে তারা কঙ্গনার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেছে, নায়িকার ছবি পুড়িয়েছে, ছিড়েছে, কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে। তারা ঘোষণা দিয়েছেন, যে করেই হোক কঙ্গনার মুম্বাইয়ে আসা রোধ করতে হবে।

এই অবস্থায় ‘কুইন’ খ্যাত অভিনেত্রীর জন্য ওয়াই প্লাস নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে বিজেপি সরকার। ৯ সেপ্টেম্বর নায়িকা মুম্বাই বিমানবন্দরে নামার পর থেকেই তার সঙ্গে সর্বক্ষণ থাকবেন একজন ব্যক্তিগত নিরাপত্তা অফিসার এবং ১১ জন আধা সামরিক বাহিনীর জওয়ান। তাদের মধ্যে দুই তিনজন আবার কমান্ডো প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত।

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পরে বলিউডের একাংশের বিরুদ্ধে মাদক যোগ, স্বজনপোষণের অভিযোগে সরব হয়েছেন কঙ্গনা। তাছাড়া শিবসেনার শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গেও বিতণ্ডায় জড়িয়েছেন। এসব কারণেই বলিউড ‘কুইন’কে ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরির নিরাপত্তা দেয়ার সিদ্ধান্ত।

এমন সম্মান পেয়ে খুশিতে আত্মহারা কঙ্গনা। টুইট করে তিনি বলেছেন, ‘এর থেকে প্রমাণিত হল ফ্যাসিস্তরা কোনো দেশভক্তের কণ্ঠরোধ করতে পারে না। অমিত শাহের প্রতি কৃতজ্ঞ। তিনি হয়তো আমাকে বলতেই পারতেন, কয়েকদিন পরে মুম্বাইয়ে ফিরতে। তিনি একজন ভারতকন্যাকে সম্মান দিয়েছেন এবং তার আত্মসম্মান ও গর্বকে রক্ষা করেছেন।’

তবে কঙ্গনাকে ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা দেয়া নিয়ে নানা মহলে বইছে বিতর্কের ঝড়। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা দেয়ার মধ্যদিয়ে মহারাষ্ট্র সরকারকে লাগাতার আক্রমণের পুরস্কার পেলেন কঙ্গনা। মুম্বাইয়ের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ বলেছেন, ‘একটি শহরের নিন্দা করার কারণে একজনকে সরকারি নিরাপত্তা দেয়া হল।’

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে কটাক্ষ করে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রের প্রশ্ন, ‘বলিউডের টুইটার ব্যবহারকারীরা কেন ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরি নিরাপত্তা পাচ্ছেন? যখন ভারতে এক লাখ মানুষ পিছু ১৩৮ জন পুলিশ রয়েছে এবং ৭১টি দেশের মধ্যে শেষের দিক থেকে পঞ্চমে রয়েছে ভারত। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কি নিরাপত্তা বাহিনীকে আরও ভালো ভাবে ব্যবহার করতে পারেন না!’

কিন্তু হঠাৎ শিবসেনারা ক্ষেপল কেন কঙ্গনার উপরে? অভিনেতা সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকে সবচেয়ে বেশি সোচ্চার হয়েছেন কঙ্গনা। স্বজনপোষণ থেকে শুরু করে নানা বিষয় নিয়ে তোপ দেঁগে চলেছেন বলিউডের তাবড়দের বিরুদ্ধে। এছাড়া তিনি মুম্বাই পুলিশকেও ক্রমাগত কটাক্ষ করে চলেছেন। তার অভিযোগ, সুশান্তের মৃত্যু-তদন্তে মুম্বাই পুলিশ চরম গাফেলতি করেছে। তাদের লজ্জা হওয়া উচিত।

এখানেই থেমে থাকেননি নায়িকা। এরপর এক টুইট বার্তায় মুম্বাইকে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের সঙ্গে তুলনা করেন কঙ্গনা। তাতেই ক্ষেপে যায় রাজ্যের ক্ষমতাধর শিবসেনারা। দলটির মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত টুইট করে কঙ্গনাকে মুম্বাইয়ে না ফেরার হুমকি দেন। তিনি প্রশ্ন তোলেন, ‘যে শহর কঙ্গনাকে নাম, যশ, খ্যাতি, টাকা সবকিছু দিয়েছে, সে শহর সম্পর্কে তিনি বাজে মন্তব্য কীভাবে করতে পারে।’

পাল্টা টুইট করেন সাহসী কঙ্গনাও। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে লেখেন, ‘পা-চাটার দলদের হঠাৎ করেই মহারাষ্ট্রের উপর ভালোবাসা উথলে উঠছে। মহারাষ্ট্র কারও বাবার নয়। আগামী ৯ সেপ্টেম্বর আমি মুম্বাইতে ফিরব। আমি যখন বিমানবন্দরে নামব তখন টুইট করে তা সবাইকে জানিয়ে দেব। কারও বাবার ক্ষমতা থাকলে আমাকে যেন আটকায়।’

COMMENTS

[gs-fb-comments]