জলিল সাহেবের বক্তব্য শুনে আকাশ থেকে পড়িনি’- আজমেরী হক বাঁধন

জলিল সাহেবের বক্তব্য শুনে আকাশ থেকে পড়িনি’- আজমেরী হক বাঁধন

সংগীতশিল্পী উপমার চমক
উঠতি নায়কে আগ্রহ ক্যাটরিনার
বলিউ;ডে নাম লেখা;লেন সুস্মিতা সেনের মেয়ে

ধ”র্ষকরা অশালীন পোশাক দেখে উদ্বুদ্ধ হয়—ঢাকাই চলচ্চিত্রের আ’লোচিত চিত্রনায়ক ও প্রযোজক অনন্ত জলিল এক ভিডিও বার্তায় এমনটা দাবি করেন। এরপর নেটিজেনদের একাংশের তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন অনন্ত।

অনন্তর এমন বক্তব্যে ক্ষোভ উগড়েছেন অ’ভিনেত্রী ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত সংগীতশিল্পী মেহের আফরোজ শাওন। তিনি অনন্তকে বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বেশকজন অ’ভিনেত্রী প্রতিবাদ জানিয়েছেন। লাক্স তারকা অ’ভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার ভাবনার কথা জানিয়েছেন।

অনন্ত জলিলের এমন বক্তব্যে মোটেও অ’বাক হননি বাঁধন। বিষয়টি ব্যাখ্যা করে এ অ’ভিনেত্রী বলেন—অনন্ত জলিল সাহেব যে বক্তব্য দিয়েছেন তা গুটি কয়েক মানুষের ভাবনা নয়।

কেউ যদি ভেবে থাকেন অল্প সংখ্যক মানুষ এ ধরনের ভাবনা পোষণ করেন তবে ভুল ভাবছেন। এমন চিন্তা জলিল সাহেব একাই পোষণ করেন না। পুরুষতান্ত্রিক সমাজে এই ধরনের চিন্তা নারী-পুরুষ উভ’য়ে পোষণ করেন। ধ”র্ষক আমাদের মাঝেই রয়েছে—তেমনি এ ধরনের চিন্তা ভাবনা যারা পোষণ করেন তারাও আমাদের আশেপাশেই রয়েছেন।

একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে প্রতিটি অন্যায়ের বি’রুদ্ধে আওয়াজ তোলা নৈতিক দায়িত্ব। কিন্তু সমাজের বাস্তবতা পুরোপুরি উল্টো। বাঁধন বলেন—ধ”র্ষণ সংক্রান্ত একাধিক পোস্ট আমি ফেসবুকে দিয়েছি। ওখানে খেয়াল করলে দেখবেন, কত মানুষ এ ধরনের চিন্তা লালন করেন।

কিন্তু অনন্ত জলিল সাহেব ভেতরের চিত্রটি বাইরে প্রকাশ করার কারণে সবার চোখে পড়েছে। অনন্ত জলিল সাহেবের বক্তব্য শুনে আকাশ থেকে পড়েছি বিষয়টি কিন্তু তা নয়। কারণ ওনার কাছ থেকে এর বেশি কিছু আশা করিনি। সস্তা খ্যাতির জন্য তিনি এ পর্যন্ত যা যা করেছেন সবই স্টান্টবাজি।

এবারো এই বক্তব্য দিতে গিয়ে হয়তো ভেবেছেন অনেকের সম’র্থন পাবেন এবং তিনি সম’র্থন পাচ্ছেনও। আপনি ভিডিওর কমেন্ট বক্সে গিয়ে দেখেন প্রমাণ পেয়ে যাবেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলো—আমাদের মতো কয়েকজন এ বিষয়ে কথা বলবেন আর কাউকে পাবেন না।

বর্তমান পরিস্থিতিতে নারীদের চিন্তাধারা ব্যাখ্যা করে বাঁধন বলেন—আমাদের দেশের নারীদের এমনভাবে শিক্ষা দেওয়া হয়েছে যে, নিজেকে ভালো প্রমাণ করার জন্য অন্য একজন নারীকে টেনেহিঁচড়ে নামাতেও কুণ্ঠা বোধ করেন না।

যে পুরুষ তার বাড়িতে ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স করছেন তাকে নিয়েও কোনো কথা তারা বলেন না। অথচ একটি মে’য়ে কেমন পোশাক পরে ধ”র্ষণের বি’রুদ্ধে প্রতিবাদ করছেন সেটা নিয়ে এসব নারীরা ঠিকই সমালোচনা করেন।

যেকোনো চিন্তা পোষণের জন্য টাকা, সম্মান আর প্রাপ্তি প্রয়োজন হয় না। একজন দিনমজুর কিংবা রিকশা চালক অনেক শিক্ষিত মানুষের চেয়ে উন্নত চিন্তা পোষণ করতে পারেন।

স্বশিক্ষা বলে একটি শব্দ রয়েছে। কিন্তু স্বশিক্ষায় সবাই শিক্ষিত হতে পারেন না। এজন্য চর্চার প্রয়োজন, যা এই সমাজে অনেক কম বলে মনে করেন বাঁধন।

COMMENTS

[gs-fb-comments]