ফেসবুক থেকে তথ্য চু;রি, ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে মাম;লা

ফেসবুক থেকে তথ্য চু;রি, ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে মাম;লা

করো;নার হানায় ইতালিতে ফের বাড়ল লকডাউন
দ. চীন সাগরে বেইজিংয়ের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা, উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র
ভারতের ভাঙ্গন শুরু, নিজেদের পতাকা নিয়ে মিছিল করলো নাগাল্যান্ড

৫ লাখ ২০ হাজার ভারতীয় ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য চু;রির অভিযোগে লন্ডনের ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে মাম;লা করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই)। শুধু ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা নয়, গ্লোবাল সায়েন্স রিসার্চ নামে আরও এক বিদেশি সংস্থার নাম যুক্ত হয়েছে সিবিআইয়ের অভিযোগে। খবর ভারতীয় গণমাধ্যমের।২০১৮ সালে লন্ডনের ওই সংস্থার বিরুদ্ধে বিশ্বের অনেক গণমাধ্যমে ফেসবুক থেকে তথ্য চু;রির অভিযোগে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল।

সেসময় ভারতের কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ সংসদে জানিয়েছিলেন, ফেসবুক-কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা তথ্য চু;রি;র বিষয়ে সিবিআই তদন্ত করবে। এরপরই তদন্তে নামে সিবিআই। প্রায় আড়াই বছর তদন্ত চালানোর পর তারা ওই সংস্থার বিরুদ্ধে মাম;লা করে।

জানা যায়, গ্লোবাল সায়েন্স প্রাইভেট লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা ও ডিরেক্টর ড. আলেকজান্ডার কোগান একটি অ্যাপ তৈরি করেন, যার নাম ‘দিস ইজ ইওর ডিজিটাল লাইফ’। ফেসবুকের নীতি অনুযায়ী,

গবেষণা ও শিক্ষামূলক কাজের জন্য এই অ্যাপটি ব্যবহারকারীদের কিছু নির্দিষ্ট তথ্য সংগ্রহ করতে পারে। কিন্তু সেই অ্যাপের মাধ্যমে বেআইনিভাবে ব্যবহারকারীদের আরও অনেক তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছিল।

ফেসবুক জানায়, ৩৩৫ জন ভারতীয় ব্যবহারকারী ওই অ্যাপ ইন্সটল করেছেন। সিবিআই অনুমান করেছে, প্রায় ৫ লাখ ৬২ হাজার ব্যবহারকারীর তথ্য চু;রি করা হয়েছে।

যেসব ব্যবহারকারী অ্যাপটি ডাউনলোড করেছিলেন, তাদের মধ্যে ছয় জন গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে সিবিআইকে জানান, তাদের কাছে এ ব্যাপারে কোনো তথ্য ছিল না। তাদের অজান্তেই তথ্য চু;রি হয়েছে।

তারা জানলে এই অ্যাপ ডাউনলোড করতেন না। ওই সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ, সংগ্রহ করা এসব তথ্য ব্যবসায়িক স্বার্থে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকাকে দিয়েছিল গ্লোবাল সায়েন্স রিসার্চ লিমিটেড।

এই ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল, যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের হয়ে সংস্থাটি ক্যাম্পেইন করেছিল। সেই কারণে ফেসবুক থেকে তথ্য চু;রি করে তারা। তাদের তথ্য প্রভাব ফেলে নির্বাচনের প্রচারে। এরপরই বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ে। ফেসবুক থেকে তথ্য চু;রির অভিযোগে অনেক গ্রাহকও হারাতে থাকে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা।

COMMENTS

[gs-fb-comments]