১২ হাজার রুপি দিয়ে ভ্যা’ক’সিন কিনতে পাকিস্তানিদের হুড়োহুড়ি

১২ হাজার রুপি দিয়ে ভ্যা’ক’সিন কিনতে পাকিস্তানিদের হুড়োহুড়ি

ফ্রান্সের পণ্য বয়’কটের ডাক, বাংলাদেশের বি’ক্ষোভ বিশ্ব মিডিয়ায়
কাশ্মীরের জনগণের পক্ষে চীন
আমার বাবা বাংলাদেশি ছিল, বের করে দিন আমাকেও : কংগ্রেস নেতা

পাকিস্তানে বাণিজ্যিকভাবে ‘ভ্যা’ক’সিন প্রয়োগ কর্মসূচির প্রথম ধাপে হাজার হাজার মানুষ মোটা অঙ্কের অর্থ খরচ করে ভ্যা’ক’সিন কিনছে।দেশটিতে সরকারিভাবে বিনামূল্যে ভ্যা’ক’সিন দেয়া হচ্ছে সামনের সারির স্বাস্থ্যকর্মী ও ৫০ বছরের বেশি বয়সীদের। কিন্তু ভ্যা’ক’সিন দেয়ার এই গতি বেশ ধীর। এই প্রেক্ষিতে গতমাসে পাকিস্তান সরকার সাধারণ মানুষদের জন্য বেসরকারিভাবে ভ্যা’ক’সিন আমদানির অনুমতি দেয়।

বাণিজ্যিকভাবে বিক্রির প্রথম ধাপে রাশিয়ার স্পুটনিক ৫ ভ্যা’কসিনের দুই ডোজ কেনার সুযোগ দেয়া হয়েছে। এই দুই ডোজ প্যাকের মূল্য রাখা হয়েছে ১২ হাজার পাকিস্তানি রুপি। গত সপ্তাহ থেকে বেসরকারিভাবে ভ্যা’কসিন কিনে প্রয়োগের অনুমতি দেয়া হয়েছে। মূল্য চড়া হলেও প্রচুর মানুষ এই ভ্যা’কসিন কিনছে। রোববার করাচির ভ্যা’কসিন প্রয়োগ কেন্দ্রগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, সবগুলো ভ্যা’কসিন ইতোমধ্যে শেষ হয়ে গেছে।

এত দাম সত্ত্বেও এসব কেন্দ্রে দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা করে ভ্যা’কসিন নিতে হচ্ছে। করাচির কিছু কেন্দ্রে অনেকের তিন ঘণ্টা পর্যন্ত লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। এসব ভ্যা’কসিন গ্রহীতার অধিকাংশই তরুণ ও যুবক পাকিস্তানী নাগরিক যারা সরকারি নিয়মে বিনামূল্যে ভ্যাক’সিন নেয়ার অনুমতি এখনো পাননি।
করাচির একটি ব্যয়বহুল হাসপাতাল থেকে ভ্যা’কসিন নিয়ে ৩৪ বছর বয়সী সাদ আহমেদ বলেন, ‘আমি এটা পেয়ে খুবই খুশি কারণ ভ্রমণের জন্য এটা দরকার।’

বেসরকারি উদ্যোগে ভ্যা’কসিন প্রয়োগ শুরু হলেও সরকার ও আমদানিকারকদের মধ্যে ভ্যা’কসিনের মূল্য নির্ধারণ নিয়ে এখনো বিতর্ক চলছে। পাকিস্তান সরকার প্রথমে মূল্য রাখার ক্ষেত্রে আমদানিকারকদের ছাড় দিতে সম্মত হয়েছিল। কিন্তু পরে সরকার সর্বোচ্চ দাম নির্ধারণের সিদ্ধান্ত নেয়।

একটি ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি ইতোমধ্যেই স্পুটনিক ৫ ভ্যা’কসিনের ৫০ হাজার ডোজ আমদানি করেছে। তারা এ নিয়ে আদালতেও গিয়েছে এবং রায়ে জয় পেয়েছে। এর ফলে সরকারের দ্বারা মূল্য নির্ধারণের আগ পর্যন্ত ভ্যা’কসিন বিক্রির অনুমতি পেয়েছে কোম্পানিটি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের একটি ছবিতে দেখা গেছে, করাচির সাউথ সিটি হাসপাতালের সামনে গভীর রাত পর্যন্ত মানুষ লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন ভ্যা’কসিন নেয়ার জন্য। হাসপাতালটি ৫ হাজার ডোজ ভ্যা’কসিন সংগ্রহ করেছে এবং মাত্র দুই দিনের মধ্যেই সব ডোজ ক্রেতারা বুকিং দিয়ে ফেলেছেন।

COMMENTS

[gs-fb-comments]