‘মুসলমানরা যখন নিপীড়িত হয়, দুর্ভাগ্যবশত বিশ্ব তখন নীরব থাকে’

‘মুসলমানরা যখন নিপীড়িত হয়, দুর্ভাগ্যবশত বিশ্ব তখন নীরব থাকে’

কাতারকে অত্যাধুনিক কোন যু’দ্ধ’বিমান কিনতে দেবে না ইসরাইল!
ইরানে ক্লিনিকে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, নিহত অন্তত ১৯
নির্বাচনে জালিয়াতির প্রমাণ নেই : মার্কিন নির্বাচন কমিশন

ভারতীয় বাহিনীর যে নিপীড়ন কাশ্মীরিদের ওপর নেমে এসেছে, বিশ্বকে অবশ্যই তার স্বীকৃতি দিতে হবে ও নিন্দা জানাতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শুক্রবার (৩০-৮-১৯) অধিকৃত কাশ্মীরিদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে ইসলামাবাদের কনস্টিটিউশন অ্যাভিনিউতে এক অনুষ্ঠানে দেয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পরিস্থিতি আরও উত্তেজিত করতে ভারত সাজানো হামলা চালাতে পারে। এমন কিছু ঘটলে পাকিস্তান সর্বশক্তি দিয়ে তার মোকাবেলা করবে। ‘আমরা বিশ্বকে সতর্ক করছি যে, আজাদ কাশ্মীরে ভারত গুরুতর কিছু করবে। আমি অবশ্যই মোদিকে হুশিয়ারি দিয়ে বলছি- ভারত যদি দুরভিসন্ধিমূলক কিছু করতে চায়, পাকিস্তান সর্বশক্তি দিয়ে তার মোকাবেলা করবে।’

ইমরান খান বলেন, আমাদের বিজেপি ও আরএসএসের রাজনীতি বুঝতে হবে। আরএসএস মনে করে হিন্দুরা সবার চেয়ে শ্রেষ্ঠ। তাদের ইশতেহার হচ্ছে- হয় মুসলমানদের ভারত থেকে বের করে দেও, নতুবা তাদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক বানিয়ে দাও। নাৎসিবাদীরা যেভাবে জার্মানিকে জিম্মি করে রেখেছিল, আরএসএসের মতাদর্শও সেভাবে গ্রহণ করেছে ভারত।

‘কাশ্মীরিদের পক্ষে ইতিমধ্যে বিশ্বের দাঁড়ানোর কথা ছিল, কিন্তু সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে ধর্ম এখানে একটি পরিচয়সূচক ভূমিকা রেখেছে,’ বললেন সাবেক এ ক্রিকেট কিংবদন্তি। তার মতে, মুসলমানরা যখন নিপীড়িত হয়, দুর্ভাগ্যবশত বিশ্ব তখন নীরব থাকতে চায়। কাশ্মীরের অধিবাসীরা যদি মুসলমান না হতেন, তবে বৈশ্বিক প্রতিক্রিয়া আরও জোরালো হতো।

সাবেক এ ক্রিকেট কিংবদন্তি বলেন, বিশ্বকে বোঝা দরকার যে, ভারতীয় বিষাক্ত মতাদর্শে শেষ পর্যন্ত প্রত্যেকে আক্রান্ত হবেন। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, দুই পরমাণু শক্তিধর দেশের মধ্যে যেকোনো সংঘাতে সারা বিশ্বের জন্য বিপর্যকর হবে।

COMMENTS

[gs-fb-comments]