করোনার কারণে স্থগিত আইপিএল

করোনার কারণে স্থগিত আইপিএল

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের চূড়ান্ত সময়সূচি প্রকাশ
রমিজ রাজার চেয়ে আমার ছেলের ক্রিকেট জ্ঞান বেশি : হাফিজ
আইপিএলের পূর্ণাঙ্গ সূচি প্রকাশ

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দেয়া হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে জমজমাট ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেটের এবারের আসর। টুর্নামেন্ট শুরুর নতুন দিন তারিখ আলোচনার ভিত্তিতে ঠিক করা হবে।

জনপ্রিয় ক্রিকেটভিত্তক ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফো ও ক্রিকবাজের তাদের প্রতিবেদনে জানাচ্ছে এ খবর। তবে এখনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়নি আইপিএল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে। আজ দুপুরের মধ্যেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

ক্রিকবাজের প্রতিবেদন মোতাবেক, আজ দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ আইপিএলের ভাগ্য নির্ধারণে বৈঠকে বসেছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) এর শীর্ষ কর্তারা। প্রাথমিকভাবে তারা ভেবেছিলেন ছয় শহরের বদলে একটি শহরে খেলা চালিয়ে নেয়ার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই প্রস্তাব টেকেনি।

চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে আইপিএলে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর কাছ থেকে তাদের মতামত জিজ্ঞেস করেছে আয়োজকরা। বেশ কয়েকটি দল পুরো আইপিএল বন্ধ করে দেয়ার পক্ষেই নিজেদের মত দিয়েছে। তাই আপাতত স্থগিত করার সিদ্ধান্তি নেয়া হয়েছে।

গত দুইদিন ধরে করোনাকে ঘিরে একের পর এক নেতিবাচক খবরই পাচ্ছে আইপিএল। এ কারণেই মূলত স্থগিত করে দেয়া হয়েছে আইপিএলের বাকি খেলাগুলো। এখনও পর্যন্ত মাঠে গড়িয়েছে আইপিএলের ২৯টি ম্যাচ। গ্রুপপর্বের ২৭ ও পরে প্লে-অফের চারটি মিলিয়ে মোট ৩১টি ম্যাচ বাকি রয়েছে টুর্নামেন্টের।

এদিকে দুইদিনে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে আইপিএলের চারটি দলে। মঙ্গলবার তৃতীয় ও চতুর্থ দল হিসেবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত খেলোয়াড়ের কথা জানিয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ও দিল্লি ক্যাপিট্যালস। এর আগে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দুই খেলোয়ার এবং চেন্নাই সুপার কিংসের দুই সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন।

আজ নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন হায়দরাবাদের ভারতীয় উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ঋদ্ধিমান সাহা ও দিল্লির লেগস্পিনার অমিত মিশ্র। দিল্লির অরুন জেটলি স্টেডিয়ামে আজ রাতেই মাঠে নামার কথা ছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের, প্রতিপক্ষ ছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।

কিন্তু এ দুই দলের দুই খেলোয়াড় আক্রান্ত হওয়ায় সংক্রমণ আরও বাড়ার আশঙ্কায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্তই নিয়ে নিলো আইপিএল আয়োজকরা।

COMMENTS

[gs-fb-comments]