এক ফেরিতে পার হলো ৩০০০ যাত্রী

এক ফেরিতে পার হলো ৩০০০ যাত্রী

কুয়েতে সরাসরি ফ্লাইট চালুর জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় বিমান সংস্থাগুলো
ভালোবাসা দিয়ে সমালো’চকদের জ’বাব দিলেন সেই টম ইমাম
হেফাজতকে রানা দাশগুপ্তের ‘ধন্যবাদ’

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট থেকে প্রায় তিন হাজার যাত্রী নিয়ে বাংলাবাজারের দিকে ছেড়ে গেছে ফেরি যমুনা। সোমবার (১০ মে) সকাল সোয়া ১০টার দিকে ২ নম্বর ঘাট থেকে ফেরিটি ছেড়ে যায়। ফেরিটিতে যাত্রী ছাড়াও পাঁচটি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স ছিল। সকাল থেকে দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ফেরিতে নদী পার হওয়া সুযোগ পেয়ে যাত্রীদের উল্লাস করতে দেখা যায়।

এ নিয়ে এ পর্যন্ত শিমুলিয়া থেকে আজ দুটি ফেরি ছেড়ে গেল। এর আগে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে একই ঘাট থেকে আরেকটি ডাম্প ফেরি ছেড়ে যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, সোমবার সকাল থেকে ঘাটে আসা যাত্রীরা দুই ও তিন নম্বর ফেরিঘাটে ভিড় করতে থাকেন। এর মধ্যে সকাল ১০টার দিকে ডাম্প ফেরি যমুনা দুই নম্বর ঘাটে নোঙর করে। ফেরিটিতে পাঁচটি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স তোলার সঙ্গে সঙ্গেই ঘাটে অপেক্ষারত হাজার হাজার যাত্রী উঠে পড়েন। পরে সোয়া ১০টার দিকে যাত্রী ও অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে ফেরিটি বাংলাবাজারের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

এ বিষয়ে বিআইডাব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের একটি সূত্র জানায়, মূলত লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পারাপারের জন্যই ফেরিটি ছেড়ে যায়। তবে ফেরিটি নোঙর করা মাত্রই যাত্রীরা ফেরিটিতে উঠে পড়েন।

মাওয়া ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ হিলাল আহমেদ জানান, ফেরি চলাচল বন্ধ থাকলেও অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে দুটি ফেরি ছেড়ে গেছে। ঘাটে থাকা যাত্রীরাও তাতে উঠে পড়েন। ঘাটে বর্তমানে সাড়ে চার শতাধিক পণ্যবাহী যানবাহন ও কয়েক হাজার যাত্রী রয়েছেন।

এদিকে গত দুই দিনের মতো আজ সকাল থেকেও হাজার হাজার যাত্রী শিমুলিয়া ঘাটে উপস্থিত হতে থাকেন। নিষেধাজ্ঞা ও পথে পথে বিজিবি-পুলিশের চেকপোস্ট সত্ত্বেও যাত্রীরা পায়ে হেটে ঘাট এলাকায় এসে জড়ো হতে থাকলে তৈরি হয় গাদাগাদি ভিড়। ঘাটে ভিড় করা এসব যাত্রীদের মধ্যে ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধি, সামাজিক দূরত্ব মানতে দেখা যায়নি।

COMMENTS

[gs-fb-comments]