করোনায় আরও ১৩৪ মৃ’ত্যু, শনাক্ত ৬২১৪

করোনায় আরও ১৩৪ মৃ’ত্যু, শনাক্ত ৬২১৪

এসআই আকবরকে ধরি’য়ে দিতে ১০ লাখ টাকা পু’রস্কার ঘো’ষণা
কুড়িগ্রামে কব;র খুঁড়তেই দেখা গেল আরবি হরফের ছাপ
আরব আমিরাতের রাষ্ট্রপতি ঈদুল আজহা উপলক্ষে মুক্তি দিলেন প্রবাসী-সহ ৮৫৫ বন্দিকে

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়ে আরও ১৩৪ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃ’ত্যু হয়েছে ১৪ হাজার ৯১২ জনের। এ সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৬ হাজার ২১৪ জন। সবমিলিয়ে আ’ক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ লাখ ৩৬ হাজার ২৫৬ জনে। মৃ’ত ১৩৪ জনের মধ্যে পুরুষ ৮৪ জন এবং ৫০ জন নারী।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ২৭ দশমিক ১৩ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৯৯ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৮ দশমিক ৯৯ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃ’ত্যুর হার ১ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

 

শনিবার (৩ জুলাই) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাছিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গ বিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৭৭৭ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ২৯ হাজার ১৯৯ জন। সারাদেশে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৬৬টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা হয়েছে।

 

এর মধ্যে আরটি-পিসিআর ল্যাব ১২৮টি, জিন এক্সপার্ট ৪৭টি, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন ৩৯১টি। এসব ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ২২ হাজার ৭০৩টি। মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ২২ হাজার ৬৮১টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬৬ লাখ ৯৩ হাজার ৬৮১টি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, ২৪ ঘণ্টায় মৃ’ত ১৩৪ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৩৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১১ জন, রাজশাহী বিভাগে ২৩ জন, খুলনা বিভাগে ৩৯ জন, বরিশাল বিভাগে তিনজন, সিলেট বিভাগে একজন, রংপুর বিভাগে ১৫ জন ও ময়মনসিংহ বিভাগে চারজন রয়েছেন।

মৃ’তদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরে ঊর্ধ্বে ৬৫ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৩০ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ২৪ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১০ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে চারজন ও ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে একজন, রয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আ’ক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃ’ত্যু হয়। এরপর ধীরে ধীরে আ’ক্রান্তের হার বাড়তে থাকে।

COMMENTS

[gs-fb-comments]