সৌদি যুবরাজের বিরুদ্ধে সাত নারীর গুরুতর অভি’যোগ

সৌদি যুবরাজের বিরুদ্ধে সাত নারীর গুরুতর অভি’যোগ

স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে ভোটাধিকার না থাকা কল’ঙ্কজনক: চরমোনাই পীর
দিল্লির তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রির নিচে নেমে গেছে
এবার আপনার পালা, বাইডেনকে ওবামা

সৌদি আরবের এক যুবরাজের ’বি;রুদ্ধে সাত নারীর গুরু;তর অভি’যোগ এনেছে। সাত নারীর বেশিরভাগই ফিলিপিন্সের। যারা ফ্রান্সে যুবরাজের কর্মচারী হিসেবে কাজ করেন। এদিকে অভি’যোগের বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে ফ্রান্সের আদালত। ফরাসি প্রসিকিউটরা বলছেন, বিষয়টি তারা গভীর;ভাবে তদন্ত করছেন। খবর মিডল ইস্ট আইয়ের।

প্রতিবেদন বলছে, সাত নারীর অভি;যোগ তাদের ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস থেকে দূরের একটি অ্যাপার্টমে;ন্টে রাখা হতো। যুবরাজের মালিকানা;ধীন ওই অ্যাপার্টমে;ন্টে তাদের সাথে আধুনিক;কালের দাসদের মতো আ;চর;ণ করা হতো।

ফরাসি গণমাধ্যমগুলোর খবর অনুযায়ী, ২০০৮, ২০১৩ ও ২০১৫ সালে ওই নারী;দের সাথে নি;ম্নমানের ;আচর;ণ করা হয়েছে। নারীদের অভি;যোগের পর সৌদি যুবরাজের বি;রু;দ্ধে মান;বপা;চার সংশ্লিষ্ট বি;ষয়েও তদন্ত শুরু হয়েছে। এছাড়া মাম;লার প্রসি;কিউটররা অভি’যোগের বিষয়ে ওই নারীদের বক্তব্য শুনেছেন।

অভিযুক্ত সৌদি যুবরাজ এই মুহূর্তে ফ্রান্সে না থাকায় তার কোনো বক্তব্য নিতে পারেননি প্রসিকিউটররা। তবে যে যুবরাজের বি;রু;দ্ধে অভি’যোগ তার নাম প্রকাশ করেনি ফ্রান্সের কোন গণমাধ্যম।ওই সাত নারীদের সৌদি আরবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল।

তারা সৌদি আরব ও ফ্রান্সে যুবরাজ এবং তার পরিবারের কর্মচারী হিসেবে কাজ করেছেন। অ;ভি;যোগে তারা বলেন, কয়েকজনকে ফ্লোরে ঘুমাতে হতো। যুবরা;জের চার সন্তানের জন্য খাবার পরিবেশন করার সময় শুধু খাবার গ্রহণের অনুমতি ছিল তাদের।

ফ্রান্সের বেসরকারি সংস্থা এসওএস এসক্লে;ভসের প্রধান আনিক ফু;গেরক্স বলেন, যখন প্রথম তাদের স;ঙ্গে দেখা হয়েচিল, তখন তারা সবাই ছিল অত্যন্ত ক্ষু;ধার্ত। এ বিষয়টি আমাকে সবচেয়ে বেশি অবাক করেছে। তারা সেই সময় ক্ষুধার কারণে কাঁদছিল।

COMMENTS

[gs-fb-comments]