হারলো বাংলাদেশ, সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

হারলো বাংলাদেশ, সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

দুপুর একটা বাজেই শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার প্রথম ওয়ানডে
মাঠে বসে বাংলাদেশের খেলা দেখলেন জাভি
স্বামী’র এই বিপদের দিনে আর চুপ করে থাকতে পারলেন না সাকিবপত্নী শিশির

জিম্বাবুয়ে সফরে একমাত্র টেস্টের পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের সবগুলো ম্যাচেও জিতেছিল বাংলাদেশ। এবারের জিম্বাবুয়ে সফরটা টাইগারদের জন্য দারুণ কাটছে। এবার তাদের সামনে সুযোগ টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতার। এই লক্ষ্যে শুক্রবার জিম্বাবুয়ের হারারেতে স্বাগতিকদের মুখোমুখি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) জিম্বাবুয়ের হারারেতে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক সিকান্দার রাজা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রান করে জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশকে জিততে হলে করতে হবে ১৬৭ রান। জবাবে শুরুটা ভালো হলেও বিপর্যয়ে মুখে পড়ে বাংলাদেশ। দলের ৬৮ রান তুলতে নেই ৬ উইকেট। ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ও ব্লেসিং মুজারবানি বাংলাদেশ দলে ধস নামিয়ে দিয়েছে।

দলের ১৪ রানের মাথায় ওপেনার নাঈমকে ফিরিয়ে দেন ব্লেসিং মুজারবানি। এরপর ৮ রান করা সৌম্যকে ফেরান ১৭ রানের মাথায়। এবার আঘাত হানেন ওয়েলিংটন মাসাকাদজা। মেহেদি (১৫), সাকিব (১২) ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহকে ৪ রানে ফিরিয়ে দিলে ধস নামে বাংলাদেশ দলে।

নরুলকে ৯ রানে ফিরিয়ে দেন চাতারা। তবে অভিষেকটা ভালোই শুরু করেন শামীম হোসেন। মাত্র ১৩ বলে ২ ছক্কা ও ৩ চারে করে ২৯ রান। কিন্তু লুক জংওয়েকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ধরা পড়েন ওয়েলিংটন মাসাকাদজা। ২৪ রান করে ফিরে যান আফিফও।

সাইফুদ্দিন করে ১৯ রান, তাসকিন ৫ রান। ১৯.৫ রানে শেষ হয় বাংলাদেশের ইনিংস। ১৪৩ রান করে টাইগাররা। ২৩ রানে জয় পায় জিম্বাবুয়ে।সিরিজে স্বাগতিকরা সমতায় (১-১) ফেরায় শেষ ম্যাচটি হয়ে থাকলো সিরিজ নির্ধারণী।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ভালো শুরু করেছে জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় ওভারে উইকেট হারালেও রান তোলায় আগ্রাসন দেখাচ্ছেন মাধেভেরে ও চাকাবা। প্রায় প্রতি ওভারেই আসছে বাউন্ডারি। পেসার শরিফুল ও স্পিনার মেহেদী নিজেদের প্রথম ওভারে খরচ করেন ১১ রান। তবে মেহেদী বোল্ড করে সাজঘরে ফিরিয়েছেন মারুমানিকে।

এরপর আঘাত হানেন সাকিব। জ্বলে ওঠা রেজিস চাকভাকে ১৪ রানে বিদায় করেন সাকিব। এরপর শরিফুরের আঘাত। ২৬ রান করে ফিরে যান ডিন মায়ার্স। ৪ রান করে রান আউট হন অধিনায়ক সিকান্দার রাজা।

তবে ওপেনার ওয়েসলে মাধভেরে বাংলাদেশকে বেশ ভুগিয়েছে। ৭৩ রানের বড় ইনিংস খেলেন তিনি। কিন্তু ১৭তম ওভারে চতুর্থ বলে শরিফুলের বলকে ছক্কা মারতে গিয়ে আফিফের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন সাজঘরে। শেষ দিকে রায়ান বার্ল করেন অপরাজিত ৩৪ রান। লুক জংওয়ে করেন ২ রান করে শরিফুলের বলে আউট হন।

২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রান করে জিম্বাবুয়ে। বাংলাদেশকে জিততে হলে করতে হবে ১৬৭ রান। বাংলাদেশে হয়ে শরিফুল নেন ৩ উইকেট, সাকিব ও মেহেদি নেন একটি করে উইকেট।

এই সিরিজে লাল সবুজের জার্সিতে অভিষেক হয়েছে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী শামীম পাটোয়ারীর। এ ম্যাচে রয়েছেন স্পিড স্টার তাসকিন আহমেদ।

এদিকে জিম্বাবুয়ের একাদশেও এসেছে দুই পরিবর্তন। এনগ্রাভা ও মুসাকান্দার বদলে একাদশে জায়গা হয়েছে টেন্ডাই চাতারা ও মিল্টন শুম্বার।

বাংলাদেশ: নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান সোহান(উইকেট-রক্ষক), শামীম হোসেন, মাহেদী হাসান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম।

জিম্বাবুয়ে: ওয়েসলে মাধভেরে, তাদিওয়ানাশে মারুমণি, রেজিস চাকভা (উইকেট-রক্ষক), ডিন মায়ার্স, সিকান্দার রাজা (অধিনায়ক), মিল্টন শুম্বা, রায়ান বার্ল, লুক জংওয়ে, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, টেন্ডাই চাতারা ও ব্লেসিং মুজারবানি।

COMMENTS

[gs-fb-comments]