কাতারে প্রথমবারের মতো নির্বাচনের অনুমোদন

কাতারে প্রথমবারের মতো নির্বাচনের অনুমোদন

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ক’রোনা আ’ক্রা’ন্ত
হিজড়াদের জন্য মাদরাসা চালু হচ্ছে ঢাকায়
বাংলাদেশে টিকা উৎপাদন কারখানা হবে গোপালগঞ্জে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল-থানি প্রথমবারের মতো আইনসভা নির্বাচনের অনুমোদন দিয়েছেন । ২৯ জুলাই বৃহস্পতিবার তার কার্যালয় থেকে এমন তথ্য দেয়া হয়েছে। আগামী অক্টোবরে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। জানা যায়, ভোটে উপসাগরীয় এই দেশটির শুরা কাউন্সিলের দুই-তৃতীয়াংশ সদস্য নির্বাচিত হবেন।২০০৩ সালে সাংবিধানিক গণভোটের মাধ্যমে প্রথম এই নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

 

আগামী বছরে দেশটিতে বিশ্বকাপ ফুটবল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তার আগেই আইনসভার এই ভোট হতে যাচ্ছে। তবে ৪৫ আসনের শুরা কাউন্সিলের ১৫ সদস্যকে মনোনয়ন দেবেন আমির শেখ তামিম।এছাড়ানতুন আইন অনুসারে, শুরা কাউন্সিলের আইন প্রণয়নের ক্ষমতা থাকবে। এছাড়া সাধারণ রাষ্ট্রীয় নীতি ও বাজেট অনুমোদনেরও সুযোগ থাকবে তাদের।

 

আর নির্বাহী ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ শুরা কাউন্সিলের হাতে থাকলেও প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তা, অর্থনৈতিক ও বিনিয়োগ নীতি তাদের হাতে থাকছে না।উপসাগরীয় অন্যান্য দেশগুলোর মতো কাতারে কোনো রাজনৈতিক দলের অনুমোদন নেই।তবে দেশটিতে পৌরসভা নির্বাচন হচ্ছে। অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকারসহ নিজের ভাবমর্যাদা বাড়াতে চাচ্ছে কাতার। যে কারণে এই নির্বাচনের পদক্ষেপ

 

বলে ধারণা করা হচ্ছে। দেশটিতে শ্রমিকদের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে। ছোট্ট কিন্তু ধনী দেশটিতে বিপুল সংখ্যক বিদেশি শ্রমিক কাজ করেন।বিশ্বের শীর্ষ তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের উৎপাদক কাতার। নতুন নির্বাচনী আইনে বয়স আঠারো বছরের ঊর্ধ্বে, যাদের দাদা কাতারে জন্মগ্রহণ করেছেন, তারা ভোট দিতে পারবেন।তাদের গোত্র কিংবা পরিবার যে জেলায় বসবাস করেন,

 

সেখানে তারা ভোট দেবেন। ৩০টি জেলা একজন করে প্রতিনিধি নির্বাচন করবে।প্রার্থীকে অবশ্যই কাতারে জন্ম ও বয়স ৩০ বছরের বেশি হতে হবে।আর প্রচারে সাড়ে পাঁচ লাখ ডলারের বেশি খরচ করা যাবে না। নির্বাচনে বিদেশি তহবিল গ্রহণ করা হলে পাঁচ বছর

 

পর্যন্ত কারাদণ্ড ও ১০ মিলিয়ন রিয়াল জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। কারো বিরুদ্ধে নৈতিক স্খলন কিংবা অসততার অভিযোগ পাওয়া গেলে সংশোধন হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি ভোট দিতে পারবেন না, প্রার্থী হওয়ারও সুযোগ থাকবে না।

 

মন্ত্রী, বিচার বিভাগ, পৌর কাউন্সিল ও সামরিক বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্বে থাকা অবস্থায় কোনো নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না উপসাগরীয় রাজতান্ত্রিক দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র কাতারে নির্বাচিত পার্লামেন্টকে উল্লেখযোগ্য ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

COMMENTS

[gs-fb-comments]