রাশিয়ার ভ্যাকসিন দিলে প্রথমে জ্ব’র আ’সবে তারপর গি’লে খা’বে ক’রো’না

রাশিয়ার ভ্যাকসিন দিলে প্রথমে জ্ব’র আ’সবে তারপর গি’লে খা’বে ক’রো’না

মানুষকে সাহায্যের হাত বাড়াল বুনো ওরাংওটাং
করোনার নতুন প্রজাতির খোঁজ ১০ গুণ ছোঁয়াচে
কুয়েতে আবাসিক ও ভ্রমণ ভিসার মেয়াদ বাড়ল ৩ মাস

সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে রাশিয়াই প্রথম মহামারী কভিড-১৯ এর প্রতিষেধক আবিষ্কার করে ফেলেছে। রুশ প্রেসিডেন্ট

ভ্লাদিমির পুতিন পুতিনের দাবি, তাদের টিকা পুরোটাই কার্যকর। তার মেয়ের শরীরে তা প্রয়োগও করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা

অবশ্য এটি নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন। আবিষ্কারকদের বরাত দিয়ে পুতিন জানিয়েছেন, এই ভ্যাকসিনের কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। সামান্য জ্বর আসতে পারে, যেটা তাঁর মেয়ের ক্ষেত্রেও হয়েছে। কিন্তু প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই তা সেরে

গেছে। রুশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তি ও বয়স্কদের আগে এটি দেওয়া হবে। এর আগে রাশিয়ান

ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের (আরডিআইএফ) প্রধান ক্রিমিল দিমিত্রিভ জানিয়েছিলেন, স্পুটনিকের মহাকাশ যাত্রা দেখে বিশ্ব চমকে গিয়েছিল। আমেরিকানরা যেমন অবাক হয়েছিল। এবারেও একই ঘটনা ঘটবে। করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন

তৈরিতে বিশ্ববাসী অবাক হয়ে রাশিয়ার সাফল্য দেখবে। রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আগেই জানিয়েছিল এই ভ্যাকসিন বিশ্বে

সাড়া ফেলবে। উপকার হবে সাধারণ মানুষের। কিন্তু কীভাবে কাজ করবে এই ভ্যাকসিন। এই সম্পর্কে মস্কোর গ্যামলিয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর আলেকজান্ডার গিন্টসবার্গ জানান,

এই ভ্যাকসিন কিছু জড় বা নিষ্প্রাণ পার্টিকলস তৈরি করবে। শরীরের অ্যাডিনো ভাইরাসের উপস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে

এগুলো তৈরি হবে। সেখান থেকেই তৈরি হবে করোনাভাইরাসের মোকাবিলা করার মতো অ্যান্টিবডি। এই অ্যান্টিবডিই গিলে খাবে করোনাভাইরাস।

COMMENTS

[gs-fb-comments]