ফুটবলাররা আক্রান্ত হলেও রোনালদোদের লিগ থামবে না

ফুটবলাররা আক্রান্ত হলেও রোনালদোদের লিগ থামবে না

করোনায় প্রায় ৩০০ মিলিয়ন ইউরো ক্ষতি বার্সেলোনার
বিসিবির নতুন চুক্তিতে যে খেলোয়াড় যত বেতন পাবেন
আইপিএলের পূর্ণাঙ্গ সূচি প্রকাশ

করোনাভাইরাসের আক্রমণে বিধ্বস্ত হয়ে যাওয়া দেশটি আবার ফুটবলকে সামনে রেখে ফিরে দাঁড়ানোর লড়াইয়ে নেমেছে। কোপা ইতালিয়া দিয়ে যে লড়াই শুরু। যেখান থেকে ব্যাটন তুলে নিয়েছে ইতালির ফুটবল লিগ সিরি আ। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোদের সামনে রেখে ইতালির মানুষ কীভাবে মাথা তুলে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছে, তা পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে সেরি আ-র মহাকর্তা, চীফ এক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) লুইজি দে সিয়েরভোর কথায়।

রোনালদোদের জুভেন্টাসের লিগ-প্রত্যাবর্তনের দিন গণমাধ্যমকে সিয়েরভো বললেন, ‘আমাদের দেশের মানুষ অপেক্ষা করেছিল ফুটবল ফিরে আসার জন্য। কোপা ইতালিয়ার ফাইনাল এক কোটিরও বেশি মানুষ টিভিতে দেখেছে। যা রেকর্ড। এবার সিরি আ শুরু হয়েছে। আশা করছি, এই প্রতিযোগিতাও দারুণ সফল হবে।’

করোনাভাইরাসের আক্রমণে ইউরোপীয় দেশগুলোর মধ্যে প্রথমে সবচেয়ে বিপর্যস্ত হয়েছিল ইতালি। এই মুহূর্তে তাদের দেশে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় আড়াই লাখ। ভেঙে পড়েছে অর্থনীতি। ফুটবল ক্লাবগুলোও আর্থিক বিপর্যয়ের মুখে।

সিরি আ মহাকর্তার মন্তব্য, ‘শুধু দর্শকদের টিকিট বিক্রি করতে পারছি না বলেই ১০ কোটি ইউরো ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও আমরা ফুটবল চালু করতে বদ্ধপরিকর।’

এমন মরিয়া মনোভাবের কারণ, ফুটবলের হাত ধরে ইতালির মানুষকে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে দেখা যাচ্ছে। সে কথা জানাচ্ছেন সিইও স্বয়ং। বলছেন, ‘আমাদের দেশের মানুষ চায় ফুটবল ফিরুক। খেলা শুরু হলে সবাই আবার পুরনো, স্বাভাবিক জীবনের স্বাদটা পাবে।’

পাশাপাশি আরও একটা আশার কথা শুনিয়েছেন সিয়েরভো, ‘আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি যত দ্রুত সম্ভব স্টেডিয়ামে দর্শক ফেরানোর। এখন ম্যাচের সময় অ্যাপের মাধ্যমে আর ভার্চুয়াল গ্যালারি বানিয়ে টিভি দর্শকদের খিদে কিছুটা মেটাচ্ছি। কিন্তু আসল লক্ষ্য হল, স্টেডিয়ামে দর্শক ফিরিয়ে আনা। আমরা ইতালি সরকারের সঙ্গে এ নিয়ে কথা চালাচ্ছি।’

জার্মানির বুন্দেসলিগা থেকে শুরু করে স্পেনের লা লিগা, সবই আবার চালু হয়েছে। কিন্তু একটা প্রশ্ন কাঁটা হয়ে থাকছে। ফুটবলের মতো শারীরিক সংযোগ এবং সংঘর্ষের খেলায় কোনও ফুটবলারের করোনা ধরা পড়লে কী হবে? সেক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা কি বন্ধ হয়ে যাবে? ইতালিতে সেই সম্ভাবনা নেই।

সিয়েরভো বলছেন, ‘কোনও ফুটবলারের যদি কোভিড-১৯ ধরা পড়ে, তাহলে তাকে সঙ্গে সঙ্গে বাকিদের থেকে আলাদা করে দেওয়া হবে। বাকিরা খেলা চালিয়ে যাবে। যদিও তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাত্রা আরও বেড়ে যাবে। পরে সুস্থ হয়ে গেলে সেই ফুটবলার আবার দলে যোগ দিতে পারবে। এইভাবে চললে চ্যাম্পিয়নশিপটা শেষ করা যাবে।’

COMMENTS

[gs-fb-comments]