অপরাজিত থেকে সিপিএলের ফাইনালে কিং খানের দল

অপরাজিত থেকে সিপিএলের ফাইনালে কিং খানের দল

বার্সেলোনার বিপক্ষে উদযাপন করবেন না সুয়ারেজ, তবে…
আইপিএলের ১০ কোটিপতি ক্রিকেটার
ধোনির অব’সর সিদ্ধান্তে আবে’গঘন পোস্ট সাক্ষীর

সেমিফাইনালে অসম লড়াইয়ে ফাইনালের ছাড়পত্র পেয়ে গেল কিং খানের দল৷ মঙ্গলবার জামাইকা তালাওয়াহাকে ৯ উইকেটে হারিয়ে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) ফাইনালে উঠল ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স৷

প্রথম প্রতিপক্ষকে অল্প রানে বেঁধে রেখে মাত্র এক উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় নাইট রাইডার্স৷ ১০৮ রান তাড়া করতে নেমে লিন্ডল সিমন্স এবং টিওন ওয়েবস্টার ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের হয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ৯৭ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেন৷ সিমন্স ও ওয়েবস্টার যথাক্রমে ৫৪ এবং ৪৪ রানে অপরাজিত থাকেন৷ ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স ৩০ বল বাকি থাকতেই ন’ উইকেটে ম্যাচ জিতে ফাইনালে পৌঁছে যায়৷

এর আগে, দুরন্ত বোলিং পারফরম্যান্স জামাইকা তালাওয়াহাকে নির্ধারিত 20 ওভারে মাত্র ১০৭ রানে বেঁধে রাখে নাইট রাইডার্স৷ প্রথমে ব্যাট করতে নেমে জামাইকা তালাওয়াহরা প্রথম পাঁচ ওভারের মধ্যে ৪ উইকেটে মাত্র ২৪ রান তোলে৷ জারমাইন ব্ল্যাকউড (০), গ্লেন ফিলিপস (২), মুজিব উর রহমান (০), এবং আসিফ আলি (৪) সবকটি উইকেট হারিয়ে সমস্যায় পড়ে তালাওয়াহরা৷

আইপিএলে নাইটদের বিগ-হিট ব্যাটসম্যান আন্দ্রে রাসেল এদিন মাত্র ২ করে ডাগ-আউটে ফেরেন৷ ইনিংসের ১৪তম ওভারে দুর্ভাগ্যজনকভাবে আউট হন রাসেল৷ সুনীল নারিনের বোলিংয়ে অন-ফিল্ড আম্পায়ার তাঁকে ধাক্কা দিয়েছিলেন৷ ফলস্বরূপ তাঁকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠানো হয়েছিল। তারপর ফিরে স্লিপে ক্যাচ-আউট হন রাসেল৷ কিন্তু রিপ্লে-তে স্পষ্ট বোঝা গিয়েছিল যে বলটি সরাসরি প্যাড থেকে এসেছিল।

শেষ ওভারে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স শক্ত রেখা ও দৈর্ঘ্য বজায় রাখতে সক্ষম হয়৷ ফলস্বরূপ তালওয়াহরা ১০৭ রানের বেশি তুলতে পারেনি৷ রান তাড়া করে মাত্র এক উইকেট হারিয়ে ফাইনালের ছাড়পত্র জোগাড় করে নেয় নাইট রাইডার্স৷ এর আগে লিগের সব ক’টি ম্যাচ জিতে রেকর্ড গড়েছিল কিং খানের দল৷

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স ১১১/১ (লেন্ডেল সিমন্স ৫৪ *, টিওন ওয়েবস্টার ৪৪ *, মুজিব উর রহমান ১-১৮) জামাইকা তালাওয়াহাস ১০৭/৭ (এনক্রুমাহ বোনার ৪১, রোভম্যান পাওয়েল ৩৩, আকেল হোসেইন ৩-১৪)

COMMENTS

[gs-fb-comments]