কিভাবে বুঝবেন আপনার শ’রীরে ক্যালসিয়ামের অভাব হয়েছে?

কিভাবে বুঝবেন আপনার শ’রীরে ক্যালসিয়ামের অভাব হয়েছে?

হাড় শক্ত করতে যে ৫ খাবার খাবেন
খালি পেটে ডাবের পানি খেলে হার্টের এই রোগ গুলো আর কখনো হবে না
প্রতিদিন কতটুকু ভিটামিন সি খাবেন

কয়েকটি কারণে বিশ্বা’স করা হয় যে শক্ত হাড়ের জন্য শুধু শি’শুদের দুধ খাওয়া দরকার। প্রাপ্তবয়স্ক অনেকে মনে করেন না যে তাদের প্রয়োজনীয় ক্যালসিয়াম দরকার।ক্যালসিয়াম শ’রীরের পক্ষে দরকারি যেহেতু এটা র’ক্তচা’প কমায় এবং হাড় শক্ত করে।ক্যালসিয়াম প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায় দুগ্ধ জাতিও খাবারে

যেমন দুধ, চিজ, দই, সামুদ্রিক খাবারে এবং সবুজ সবজিতে। বর্তমানে আম’রাসবাই অস্বা’স্থ্যকর খাবার, জাঙ্ক ফুড, পিঁজা, ভাজাভুজি, বার্গার এবং তেলেভাজা নিয়ে মেতে উঠেছি যা পুষ্টি ন’ষ্ট করছে। আমাদের জীবন যাপন বর্জিত করছে সমস্ত রকম শা’রীরিক কার্যকলাপ, এটাই অন্যতম কারন অস্বা’স্থ্যকর জীবনের।ন্যাশনাল

ইনস্টিটিউট অফ হেল্থ প্রস্তাব দিয়েছে যে পুরুষ ও মহিলা সক্রিয় ভাবে প্রতিদিন ১০০০ MG করে ক্যালসিয়াম দরকার।ক্যালসিয়ামের অভাবে আমাদের শ’রীরে যে মা’রাত্মক প্র’ভাব পড়ে বা যে লক্ষণগুলো দেখা তা হলোঃ-

১। পায়ে খেঁচুনি ধ’রাঃ যদি আপনারা আপনাদের পায়ে খেঁচুনি ধ’রা অ’নুভব করেন, তাহলে এটা ক্যালসিয়ামের অভাবের প্রথম লক্ষণ।এর প্রতিকারে আপনাকে নি’শ্চিত হতে হবে যে আপনার রোজকার খাবারে যথেষ্ট ক্যালসিয়াম রয়েছে।

তাছাড়া, ক্লেভেলান্ড ক্লিনিক বলেছে যে শোওয়ার আগে পা প্রসারিত করুন তাতে ব্য’থা কিছু কম লাগবে। এটা কি বিশ্বা’স করেন? না করলে একবার চেষ্টা করে দেখু’ন!২। দাঁতের গর্তঃ আগের চেয়ে দাঁতের গর্ত বাড়ছে? শুধু মিষ্টিকে দোষ দেবেন না।যখন আমাদের শ’রীর খাবার থেকে যথেষ্ট ক্যালসিয়াম পায় না, এটি অন্যান্য উৎস থেকে খোঁ’জে, যেমন আমাদের দাঁত।

৩। অসাড় অবস্থাঃ পায়ে খেঁচুনি ধ’রার মতো ক্যালসিয়ামের অভাবের জন্যে আমাদের হাতের স্প্ল্যাশাল স্নায়ু ন’ষ্ট হয়ে যায়। যদি আপনি আগুলের ওপর অস্থিরতা বা ঝলকানি সংবেদন অ’নুভব করেন তাহলে এখু’নি ক্যালসিয়ামের পরিমাণ পরীক্ষা করান।

৪। ভঙ্গুর নখঃ দাঁত ও শ’রীরের মতো নখেও ক্যালসিয়াম থাকে। অতএব, একটি ক্যালসিয়াম-অনাহারী শ’রীর পুষ্টির জন্য সেখান থেকে ক্যালসিয়াম নেবে। এটার জন্যে আমাদের নখ ভঙ্গুর হয়ে যায়, যদি না আম’রা বেশি ক্যালসিয়াম গ্রহণ না করি।

৫। ঘুমের অসুবিধাঃ মেডিকেল তথ্য আনুসারে ক্যালসিয়াম সেরোটোনিন তৈরি ক’রতে সাহায্য করে, যা কিনা ঘুমের জন্যে দায়ি। যখন আপনি গ’ভীর ঘুমে যান, তখন আপনার ক্যালসিয়ামের লেভেল বেড়ে যায়। সুতরাং যদি আপনি রাতে কম ঘুমান তাহলে আপনার শ’রীরে ক্যালসিয়ামের অভাব বাড়বে।

৬। বাজে অ’ঙ্গবিন্যাসঃ কম ক্যালসিয়াম মানে, দু’র্বল হাড় এবং দু’র্বল হাড় মানে দু’র্বল শ’রীর। আপনার শ’রীর এই দু’র্বলতার জন্যে জবুথবু হয়ে যাবে। এই বাজে অ’ঙ্গবিন্যাসের জন্যে পিঠে ও কাঁধে ব্যাথা বাড়বে।

৭। হৃদরো’গের আ’ক্রমণঃ জৈবপ্রযু’ক্তি জাতীয় কে’ন্দ্র বলছে যে ক্যালসিয়াম পেশী সংকোচন এবং নিউরোট্রান্সমিটার রিলিজ দরকারি। সুতরাং ক্যালসিয়ামের অভাব আ’ক্রমণের কারন হতে পারে।

৮। স্মৃ’তিশ’ক্তি হ্রাসঃ রিমোট কোথায় মনে ক’রতে পারছেন না? ক্যালসিয়ামের অভাবের জন্যে স্নায়বিক উ’পসর্গগু’লি হয় যেমন স্মৃ’তিশ’ক্তি হ্রাস ও ভুলে যাওয়া মো:সেলিম মিয়া,বায়োকেমিষ্ট্রি বিভাগ ,প্রাইম এশিয়া ইউনিভারসিটি, বনানী,ঢাকা।

COMMENTS

[gs-fb-comments]