কাশ্মীরের একটি গ্রামের নাম ‘বাংলাদেশ’, জন্ম ১৯৭১ সালে

কাশ্মীরের একটি গ্রামের নাম ‘বাংলাদেশ’, জন্ম ১৯৭১ সালে

হাসতে নেই মানা
আজ ২৯ আগস্ট ২০১৯, দেখেনিন মালয়েশিয়ান রিংগিত রেট
ব্যক্তির নাম বললেই ফ্ল্যাক্সিলোড চলে যায় মোবাইলে!

ভূস্বর্গ খ্যাত কাশ্মীর। সেই কাশ্মীরে আছে ‘বাংলাদেশ’ নামে একটি গ্রাম। শুনে অ’বাক হলেও এটি সত্য। গ্রামটির চারদিকে পানি। পেছনে সুউচ্চ পর্বত মিলিয়ে অসাধারণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। জানা যায়, বিখ্যাত উলার হ্রদের তীরে গ্রামটি অবস্থিত। কাশ্মীরের বান্ডিপুরা জে’লার আলুসা তহশিলে এ গ্রামের নাম বাংলাদেশ। বান্ডিপুরা-সোপুরের মাঝ দিয়ে মাটির রাস্তা ধরে ৫ কিলোমিটার হাঁটলেই পাওয়া যায় গ্রামটি।

সূত্র জানায়, ১৯৭১ সালে জুরিমন নামে একটি গ্রামের ৫-৬টি ঘরে আ’গুন লাগে। গৃহহীন হয়ে পড়ে নিরীহ সাধারণ মানুষ। তখন পুড়ে যাওয়া জায়গা থেকে কিছুটা দূরে পার্শ্ববর্তী ফাঁকা জায়গায় সবাই মিলে ঘর তোলেন। সে বছর নয় মাস মুক্তিযু’দ্ধের পর ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্বাধীন হয়।

একই সময় গৃহহীন মানুষগুলো দুঃসময় মোকাবেলা করতে শুরু করে। তাই তারা তাদের নতুন গ্রামের নাম রাখে ‘বাংলাদেশ’। ২০১০ সালে বান্ডিপুরার ডিসি অফিস ‘বাংলাদেশ’ নামক গ্রামটিকে আলাদা গ্রামের ম’র্যাদা দেয়। ৫-৬টি ঘর দিয়ে শুরু হওয়া গ্রামে এখন পঞ্চাশেরও বেশি ঘর রয়েছে। বাংলাদেশ নামক সেই গ্রামের মানুষের প্রধান জীবিকা হচ্ছে মাছ ধ’রা। পাশাপাশি পানি বাদাম সংগ্রহ করাও গ্রামবাসীর অন্যতম প্রধান কাজ।

COMMENTS

[gs-fb-comments]