অ’ভাবে বিদেশি তরুণীদের প্রেম পালাচ্ছে জানালা দিয়ে!

অ’ভাবে বিদেশি তরুণীদের প্রেম পালাচ্ছে জানালা দিয়ে!

সুনামগঞ্জে বন্যায় বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত
হ্যাকারদের ভয়ে ফ্রান্সে সতর্কতা জারি : বাংলাদেশি
এইচএসসির বিষয়ে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা চেয়ে আইনি নো’টিশ

ফেসবুকে বাংলাদেশি তরুণ-যুবকদের প্রেমে পড়ে এদেশে উড়ে আসছেন ভিনদেশি তরুণীরা। তবে কিছুদিন পর আবারো তারা ফিরে যাচ্ছেন নিজ দেশে। অবশ্য যাচ্ছেন একা। পেছনে ফেলে যাচ্ছেন বাংলাদেশি প্রেমিককে।

অনেকেই বলছেন, আবেগের কারণে বিশুদ্ধ প্রেমের খোঁজে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বাংলাদেশি যুবক ও তরুণদের কাছে ছুটে এলেও তাদের মোহ কেটে যাচ্ছে অল্প দিনেই।

অভাব আর অনুন্নত জীবন যাপনের ধকল সহ্য না করতে পেরে প্রেমিকের প্রতি তাদের বিশুদ্ধ প্রেম ছুটে যাচ্ছে। এ যেন ঘরের দরজা দিয়ে অভাব ঢোকার পর প্রেম পালিয়ে যাচ্ছে জানালা দিয়ে!

এমন ঘটনার শিকার নারায়ণগঞ্জের যুবক ফারহান আরমান (৩০)। ফেসবুকের মাধ্যমে সম্পর্কে জড়িয়ে বিয়ে করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের নারী মেনডি কুসারকে (৩৯)। মেনডির আগেও বিয়ে হয়েছিল।

সে পক্ষের দুই সন্তানও রয়েছে। তবে সব ছেড়ে ছুটে ফানহানের কাছে ছুটে এসেছিলেন। সংসারও করেছেন আট মাস ধরে।

কিন্তু তারপর? অভাবের কারণে শুরু হয় দাম্পত্য কলহ। প্রেমিকের সঙ্গে আর সংসার টিকিয়ে রাখতে চাচ্ছিলেন না মেনডি। তাই সরাসরি এসএমএস করলেন যুক্তরাষ্ট্রের হাইকমিশনারকে।

চাইলেন তাকে নিরাপদে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরিয়ে দিতে। পেছনের সব ভালোবাসার আবেগ প্রেমকে কবর দিতে হলো ফারহানকে।

তবে মেনডি অবশ্য স্বামী ফারহানকে বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ করেনি। এমনকি তাকে যেন কোনো হয়রানি বা কিছু করা না হয় সেজন্য পুলিশকে বিশেষভাবে অনুরোধও করে গেছেন।

শুধু কি ফারহানই? গেল কয়েক বছরে শতাধিক বিদেশি তরুণী প্রেমের টানে ছুটে এসেছেন বাংলাদেশে। অনেকেই বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন ভিনদেশি বধূ হিসেবে।

তবে বিদেশি তরুণীদের বাংলাদেশে ছুটে আসা আর বিয়ে করার খবর যতটা ফলাও করে প্রচার করা হয়, তাদের প্রেম আর বিয়ের পরিণতি নিয়ে তেমন কোনো খবর প্রকাশ হয় না। তবে বেশিরভাগই কিছুদিন সংসার করে ফিরে যান নিজ দেশে।

যেমন ফেসবুকে প্রেমের টানে টাঙ্গাইলের সখীপুরে আসা মালয়েশীয় তরুণী জুলিজা বিনতে কামিস বাংলাদেশি যুবককে

বিয়ে করে সংসার করেন মাত্রা ১৭ দিন। এরপর ফিরে গেছেন নিজ দেশে। তরুণী আসছেন ঢাকঢোল পিটিয়ে চলে যাচ্ছেন গোপনে। সে কারণেই সংবাদ মাধ্যমে তা প্রচার পাচ্ছে না।

COMMENTS

[gs-fb-comments]