পুত্রবধূকে অর্ধকোটি টাকার ফার্নিচার দিল ডিপজল!

পুত্রবধূকে অর্ধকোটি টাকার ফার্নিচার দিল ডিপজল!

শাবনূর আমার নায়িকা: আসিফ
কঙ্গনাকে ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা দেয়া নিয়ে বিতর্ক
রিয়ার জেলের মেয়াদ আরও বাড়ল

‘কোটি টাকার কাবিন’ নামে একটি ছবি প্রযোজনা করেছিলেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল। শাকিব-অপুর ওই ছবিতে তিনি অভিনয়ও করেছিলেন। এবার কোটি টাকার কাবিনে নিজের ছেলের বিয়ে দিলেন জনপ্রিয় এ চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক।

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল। চলচ্চিত্রের পর্দায় এ অভিনেতাকে নেতিবাচক ও ইতিবাচক দুই চরিত্রেই দেখা গেছে। তবে খল অভিনেতা হিসেবেই অধিক পরিচিত তিনি। তার তিন ছেলে ও এক মেয়ে। মেয়ে সবার বড়। বিয়ে দিয়েছেন।

এবার বড় ছেলে সাদ্দাম সৌমিক অমির বিয়ে সম্পন্ন হলো। জানা গেছে, এ বিয়ের কাবিন হয়েছে কোটি টাকা

দেনমোহরে। এতে হাজির হন চলচ্চিত্র অঙ্গনের অসংখ্য শিল্পীরা। ডিপজল তার ছেলের বিয়ে উপলক্ষ পুত্রবধূকে অর্ধকোটি টাকার ফার্নিচার উপহার দিয়েছেন।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর একটি ফার্নিচারের দোকান থেকে অর্ধকোটি টাকার ফার্নিচার ক্রয় করেন বলে জানান ডিপজলের ঘনিষ্ঠজন জাকির হোসেন। তবে ক’রোনার আবহে শুধু কাছের মানুষদের আমন্ত্রণ করা হয়েছে। পরবর্তীতে বড় আয়োজনে অনুষ্ঠান করার ইচ্ছা আছে অভিনেতার।

ছেলের বাসর হয়েছে রাজধানীর পাঁচতারা হোটেল রেডিসন ব্লু ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনে। ডিপজলের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাতে মিরপুর প্রিন্স বাজার কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। ডিপজলের পুত্রবধূর নাম কাজী তাসফিয়া।

রাজকীয় আমেজের জমকালো আয়োজনের এই বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দুই পরিবারের সদস্যরা। তাদের সবাই সেজেছিলেন রাজকীয় পোশাকে। উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্রের অনেক তারকাও।

ডিপজলের ঘনিষ্ঠজন ঢাকা-১৬ আসনের সংসদ সদস্য ইলিয়াস মোল্লাও এসেছিলেন নবদম্পতিকে শুভেচ্ছা জানাতে। এর আগে ২৯ সেপ্টেম্বর পারিবারিক আনন্দ-উল্লাসে অনুষ্ঠিত হয় ডিপজলের ছেলের গায়ে হলুদ। অনুষ্ঠানে ছিল খাবারের বাহারি আয়োজন।

ফুচকা, চিপস ও কফি কর্নারের পাশাপাশি অতিথিদের জন্য নৈশভোজে ছিল পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার। আমন্ত্রিত অতিথি তারকারা জানিয়েছেন, ডিপজলের ছেলের বিয়েতে অংশ নেয়া ছিল দারুণ উপভোগের। সেখানে ক’রোনার জন্য স’চেতনতার দিকটিও গুরুত্ব দেয়া হয়েছিল।

এর আগে ২৯ সেপ্টেম্বর কনে কাজী তাসফিয়ার মিরপুরের বাসায় গায়ে হলুদ অনুষ্ঠিত হয়। ঘরোয়া পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয় গায়ে হলুদ। কনের বাবা প্রিন্স বাজার সুপারমলের স্বত্বাধিকারী।

ডিপজলের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ডিপজলের পুত্রবধূর নাম কাজী তাসফিয়া। প্রিন্স বাজার সুপার মলের স্বত্বাধিকারীর মেয়ে তাসফিয়া। এক কোটি টাকা দেনমোহরে এ বিয়ের কাবিন হয়েছে। ছেলের বাসর হয়েছে রাজধানীর পাঁচতারা হোটেল রেডিসন ব্লু ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনে।

ডিপজল বলেন, ‘ইচ্ছে ছিল পরিবার, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও এলাকার লোকজন নিয়ে বড় করে অনুষ্ঠান করার। কিন্তু করোনার কারণে তা আর হচ্ছে না। পরিবারের লোকজন নিয়ে এখন অনুষ্ঠান করছি।’

হলুদ সন্ধ্যায় উপস্থিত ছিলেন- গুণী নৃত্যপরিচালক মাসুম বাবুল, খ্যাতিমান অভিনেত্রী অঞ্জনা সুলতানা, অরুনা বিশ্বাস,

অভিনেতা জ্যাকি আলমগীর, শুব্রত, জায়েদ খান, আলেকজান্ডার বোঁ, মারুফ আকিব, ইমন, জয় চৌধুরী, কন্ঠশিল্পী প্রতিক হাসানসহ অনেকে। অনুষ্ঠানে তারা রঙ মেখে আনন্দ করেন।‘কোটি টাকার কাবিন’ নামে একটি ছবি প্রযোজনা করেছিলেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল। শাকিব-অপুর ওই ছবিতে তিনি অভিনয়ও করেছিলেন। এবার কোটি টাকার কাবিনে নিজের ছেলের বিয়ে দিলেন জনপ্রিয় এ চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক।

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল। চলচ্চিত্রের পর্দায় এ অভিনেতাকে নেতিবাচক ও ইতিবাচক দুই চরিত্রেই দেখা গেছে। তবে খল অভিনেতা হিসেবেই অধিক পরিচিত তিনি। তার তিন ছেলে ও এক মেয়ে। মেয়ে সবার বড়। বিয়ে দিয়েছেন।

এবার বড় ছেলে সাদ্দাম সৌমিক অমির বিয়ে সম্পন্ন হলো। জানা গেছে, এ বিয়ের কাবিন হয়েছে কোটি টাকা

দেনমোহরে। এতে হাজির হন চলচ্চিত্র অঙ্গনের অসংখ্য শিল্পীরা। ডিপজল তার ছেলের বিয়ে উপলক্ষ পুত্রবধূকে অর্ধকোটি টাকার ফার্নিচার উপহার দিয়েছেন।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর একটি ফার্নিচারের দোকান থেকে অর্ধকোটি টাকার ফার্নিচার ক্রয় করেন বলে জানান ডিপজলের ঘনিষ্ঠজন জাকির হোসেন। তবে ক’রোনার আবহে শুধু কাছের মানুষদের আমন্ত্রণ করা হয়েছে। পরবর্তীতে বড় আয়োজনে অনুষ্ঠান করার ইচ্ছা আছে অভিনেতার।

ছেলের বাসর হয়েছে রাজধানীর পাঁচতারা হোটেল রেডিসন ব্লু ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনে। ডিপজলের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাতে মিরপুর প্রিন্স বাজার কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। ডিপজলের পুত্রবধূর নাম কাজী তাসফিয়া।

রাজকীয় আমেজের জমকালো আয়োজনের এই বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দুই পরিবারের সদস্যরা। তাদের সবাই সেজেছিলেন রাজকীয় পোশাকে। উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্রের অনেক তারকাও।

ডিপজলের ঘনিষ্ঠজন ঢাকা-১৬ আসনের সংসদ সদস্য ইলিয়াস মোল্লাও এসেছিলেন নবদম্পতিকে শুভেচ্ছা জানাতে। এর আগে ২৯ সেপ্টেম্বর পারিবারিক আনন্দ-উল্লাসে অনুষ্ঠিত হয় ডিপজলের ছেলের গায়ে হলুদ। অনুষ্ঠানে ছিল খাবারের বাহারি আয়োজন।

ফুচকা, চিপস ও কফি কর্নারের পাশাপাশি অতিথিদের জন্য নৈশভোজে ছিল পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার। আমন্ত্রিত অতিথি তারকারা জানিয়েছেন, ডিপজলের ছেলের বিয়েতে অংশ নেয়া ছিল দারুণ উপভোগের। সেখানে ক’রোনার জন্য স’চেতনতার দিকটিও গুরুত্ব দেয়া হয়েছিল।

এর আগে ২৯ সেপ্টেম্বর কনে কাজী তাসফিয়ার মিরপুরের বাসায় গায়ে হলুদ অনুষ্ঠিত হয়। ঘরোয়া পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয় গায়ে হলুদ। কনের বাবা প্রিন্স বাজার সুপারমলের স্বত্বাধিকারী।

ডিপজলের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ডিপজলের পুত্রবধূর নাম কাজী তাসফিয়া। প্রিন্স বাজার সুপার মলের স্বত্বাধিকারীর মেয়ে তাসফিয়া। এক কোটি টাকা দেনমোহরে এ বিয়ের কাবিন হয়েছে। ছেলের বাসর হয়েছে রাজধানীর পাঁচতারা হোটেল রেডিসন ব্লু ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনে।

ডিপজল বলেন, ‘ইচ্ছে ছিল পরিবার, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব ও এলাকার লোকজন নিয়ে বড় করে অনুষ্ঠান করার। কিন্তু করোনার কারণে তা আর হচ্ছে না। পরিবারের লোকজন নিয়ে এখন অনুষ্ঠান করছি।’

হলুদ সন্ধ্যায় উপস্থিত ছিলেন- গুণী নৃত্যপরিচালক মাসুম বাবুল, খ্যাতিমান অভিনেত্রী অঞ্জনা সুলতানা, অরুনা বিশ্বাস,

অভিনেতা জ্যাকি আলমগীর, শুব্রত, জায়েদ খান, আলেকজান্ডার বোঁ, মারুফ আকিব, ইমন, জয় চৌধুরী, কন্ঠশিল্পী প্রতিক হাসানসহ অনেকে। অনুষ্ঠানে তারা রঙ মেখে আনন্দ করেন।

COMMENTS

[gs-fb-comments]